একযুগ পর এমন ভোট দেখছে পাবনাবাসী 

পাবনা পৌরসভা নির্বাচনে  ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হচ্ছে। দীর্ঘ ১২ বছর পর, এই প্রথম পাবনায় সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হচ্ছে বলে ভোটাররা জানিয়েছেন।

শনিবার (৩০ জানুয়ারি) সকালে সেন্ট্রাল গার্লস হাই স্কুল, আদর্শ গার্লস হাই স্কুল, আর এম একাডেমী, কৃষ্ণপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, পিটিআই স্কুল  ও জেলা স্কুল কেন্দ্র ঘুরে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ চিত্র পাওয়া গেছে।

কয়েকজন ভোটার এই প্রতিবেদককে জানান, আমরা এমন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ ভোট আশা করিনি। কোন বাধা ছাড়াই যেকোনো প্রতীকে ভোট দেওয়া যাচ্ছে। এতে প্রশাসন ও বেশ ভাল ব্যবহার করছে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, কেন্দ্রের আশপাশে কাউকে অবস্থান করতে দিচ্ছে না পুলিশ। জটলা দেখলেই সরিয়ে দিচ্ছে তারা। ভোটার আইডি কার্ড ও স্লিপ ছাড়া কাউকে ভোট কেন্দ্রে ঢুকতে দেয়া হচ্ছে না।

এমন কড়াকড়ির ফলে ভোটগ্রহণের শুরুতেই বাধা ও জেরার মুখে মুখে পড়েন পৌরসভার মেয়র কামরুল হাসান মিন্টু ও নৌকার এজেন্ট যুবলীগ নেতা শিবলী সাদিক।  সেন্ট্রাল গার্লস হাই স্কুল কেন্দ্রের সামনে শিবলীর কাছে এজেন্টের কার্ড চাওয়া হয়। এসময় মেয়র মিন্টু উপস্থিত হন। এসময় প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে দুইজনের কথা কাটাকাটি হয়।

৩০ জানুয়ারির আলোচিত এই নির্বাচনে ৫ মেয়র প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তারা হলেন- ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী জেলা যুবলীগের আহবায়ক আলী মুতর্জা সনি বিশ্বাস (নৌকা) এবং আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী (স্বতন্ত্র) জেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি শরিফ উদ্দিন প্রধান (নারকেল গাছ), বিএনপির মনোনীত জেলা বিএনপির সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাবেক এডওয়ার্ড কলেজের ভিপি নূর মোহম্মদ মাসুম বগা (ধানের শীষ), জাতীয় পার্টি মনোনীত চৌধুরী মোহম্মদ মাহাবুবুল হক (লাঙ্গল) , ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ মনোনীত আবু বক্কর সিদ্দীক (হাতপাখা)।

এছাড়া জেলা যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ২০১৫ সালে নৌকার প্রার্থী মো. রকিব হাসান টিপু এবার মনোনয়ন বঞ্চিত হয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে জমা দিলেও শেষ পর্যন্ত তিনি সরে গেছেন। আর স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে জমা দেয়া পাবনা পৌর জামায়াতের সেক্রেটারি রকিব উদ্দিনের মনোনয়ন বাতিল করে নির্বাচন কমিশন।

উল্লেখ্য, পাবনা পৌরসভার ১৫টি ওয়ার্ডের ৩৯টি ভোট কেন্দ্রের ৩৪৬টি বুথে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। মোট ১ লাখ ১২ হাজার ২৪৪ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। মেয়র পদে ৫ জন, সাধারণ পুরুষ কাউন্সিলর পদে ৭৪ জন ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে ১৭ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

error: কাজ হবি নানে ভাই। কপি-টপি বন্ধ