১০০১ টাকায় ৬০০ পরিবারকে ফ্ল্যাট দিলেন প্রধানমন্ত্রী

প্রায় তিন দশক আগে ১৯৯১ সালে কক্সবাজারে প্রলয়ঙ্করী ঘূর্ণিঝড়ের তাণ্ডবে বাস্তুহারা কয়েক হাজার পরিবারের মধ্যে ৬০০ পরিবারকে আধুনিক সুবিধা সম্বলিত ফ্ল্যাট দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৃহস্পতিবার (২৩ জুলাই) বেলা ১১টায় কক্সবাজার জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হয়ে প্রধানমন্ত্রী প্রথম ধাপে ৬০০ পরিবারকে ফ্ল্যাট হস্তান্তর করেন।

প্রতিটি পরিবারকে মাত্র ১ হাজার ১ টাকার নামমাত্র মূল্যে এসব ফ্ল্যাট হস্তান্তর করা হয়।

প্রথম ধাপে ৬০০ পরিবারকে এই ফ্ল্যাট দেয়ার পর পর্যায়ক্রমে আরও সাড়ে ৪ হাজার পরিবারকেও পুনর্বাসন করা হবে বিশ্বের সর্ববৃহৎ আশ্রয়কেন্দ্র শেখ হাসিনা আশ্রয়ন প্রকল্পে।

কক্সবাজারের খুরুশকুলে বাঁকখালী নদীর তীরে ২৫৩ একর জমির ওপর গড়ে ওঠা এই বিশেষ আশ্রয়ন প্রকল্পে প্রথম পর্যায়ে নির্মিত হয়েছে ৫ তলার ১৯টি ভবন। সরকারের নিজস্ব অর্থায়নে ১৮০০ কোটি টাকা ব্যয়ে এই আশ্রয়নকেন্দ্রে মোট ১৩৯টি ভবন নির্মাণ করা হবে। প্রতিটি পাঁচতলা ভবনে থাকছে ৪৫৬ বর্গফুট আয়তনের ৩২টি করে ফ্ল্যাট। প্রতিটি ফ্ল্যাটে পানি, বিদ্যুৎ, গ্যাস সিলিন্ডার সুবিধাসহ থাকবে সৌর বিদ্যুতের প্যানেলও।

১৯৯১ সালের ঘূর্ণিঝড়ের পর থেকে কক্সবাজার এয়ারপোর্ট এলাকার কুতুবদিয়া পাড়ায় জলবায়ু উদ্বাস্তু হিসেবে বসবাস করছিলেন তারা। পাতলা পলিথিন, শন, নারিবেল পাতা মুড়িয়ে তৈরি করা খুপড়িতে থাকতেন পরিবার নিয়ে। প্রায় ৩০ বছর পর স্থায়ী আবাসন পেয়ে সবাই খুশি। পুরো পাড়ায় সব বয়সী মানুষের মাঝে উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করছে।