হঠাৎ রাজধানীতে বৃষ্টি, কালও হতে পারে বিভিন্ন জেলায়

রাজধানীতে শুক্রবার হঠাৎ বৃষ্টির দেখা পেল নগরবাসী। যদিও আবহাওয়ার পূর্বাভাসে মৃদু বৃষ্টির সম্ভাবনার কথা বলা হয়েছিল। তবে সকালের ঝলমলে রোদের পর বৃষ্টি নামবে তা অনেকেই বুঝে উঠতে পারেননি। শুক্রবার ছুটির দিন হিসেবে কেউ কেউ ঘুরতে বেরিয়ে বিপাকে পড়েন।

বৃষ্টির পরিমাণ বেশি না হওয়ায় সড়কে পানি জমেনি। বৃষ্টির পরও রাজধানীতে তাপমাত্রা অপরিবর্তীত থাকতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস। ঢাকায় বৃহস্পতিবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২৯ দশমিক নয় ডিগ্রি সেসলসিয়াস এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২১ দশমিক এক ডিগ্রি সেলসিয়াস।

শুক্রবার দুপুর ৩টার দিকে আকাশ অন্ধকার করে বৃষ্টি শুরু হয়। কিছুক্ষণ পর তা থেমেও যায়। নগরবাসী বলছেন, ধূলার যন্ত্রণা থেকে এই বৃষ্টির ফলে তারা কিছুটা হলেও রেহাই পেয়েছেন।

পশ্চিমা লঘুচাপের সঙ্গে পূবালী বাতাসের সংমিশ্রণের কারণে ঢাকা ও খুলনা বিভাগের কোথাও কোথাও কুয়াশা পড়েছে, বৃষ্টিও হচ্ছে। আগামীকাল শনিবারও এই আবহাওয়া থাকতে পারে। রবিবার থেকে আকাশ পরিষ্কার হয়ে যাবে।

আবহাওয়াবিদ আব্দুল মান্নান বলেন, ‘এই সময়ে এই ধরনের হালকা বৃষ্টি হয়ই। আজকের পূর্বাভাসে ঢাকা ও খুলনায় বৃষ্টির কথা বলা হয়েছে। আগামীকালও এই পরিস্থিতি থাকতে পারে। তবে পরশু থেকে পরিস্থিতির উন্নতি হবে। পশ্চিমা লঘুচাপের সঙ্গে পূবালী বাতাসের সংমিশ্রণের কারণে এই কুয়াশা আর বৃষ্টি হচ্ছে।’

আবহাওয়া অধিদফতর জানায়, মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে। এর বর্ধিতাংশ উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে।

আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়, আকাশ আংশিক মেঘলাসহ আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে। তবে ঢাকা ও খুলনা বিভাগের দু’এক জায়গায় হালকা বা গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি হতে পারে। ভোরের দিকে দেশের কোথাও কোথাও হালকা থেকে মাঝারি ধরনের কুয়াশা পড়তে পারে।

আজ দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা কুতুবদিয়ায় ৩১ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস আর সর্বনিম্ন তাপমাত্রা তেতুলিয়ায় ১৫ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস।