হঠাৎ পাবনায় বছরের প্রথম ঝড় ও গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি

টানা কয়েক দিনের তীব্র তাপদাহ অতিষ্ঠ জনজীবন। কিছুতেই দেখা মিলছিলো না বৃষ্টির। অবশেষে তীব্র তাপদাহের পর বছরের প্রথম ঝড় ও গুড়ি গুড়ি বৃষ্টির দেখা পেল পাবনাবাসী।

রবিবার (৪ এপ্রিল) বিকেলে হঠাৎ করেই দেখা দেয় কালো মেঘ। বিকেল পৌনে পাঁচটার দিকে শুরু হয় তীব্র বাতাস। আকাশে কালো মেঘের ঘনঘটায় অন্ধকার নেমে আসে গোটা শহরে। বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে শহর।

তবে জেলা বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টি খবর পাওয়া গেলেও শহরে গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি দেখা গেছে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত পাবনা শহরে বড় ধরনের বৃষ্টিপাত হয়নি। তবে আকাশে প্রচুর মেঘ রয়েছে, সঙ্গে বিদ্যুৎ চমকাচ্ছে।

এদিন সকাল থেকেই দেশের বিভিন্ন স্থানে আকাশ কিছুটা মেঘলা হয়ে ছিল। দুপুরে কিছুটা গরম থাকলে, দিনের অন্যান্য সময়ের তাপমাত্র ছিল নাতিশীতোষ্ণ। আবহাওয়ার পূর্বাভাস বলছে, আজকালের মধ্যে বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

আবহাওয়া অধিদফতর বলছে, রোববার (৪ মার্চ) ও সোমাবার (৫ মার্চ) ঢাকা, চট্টগ্রাম, সিলেট, রাজশাহী, ও রংপুর বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় শিলাবৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। কোথাও কোথাও হতে পারে ঝড়ও।

এদিকে রোববার বিকেলে ঝড় বয়ে গেছে রংপুর বিভাগের গাইবান্ধা জেলায়। চৈত্রের এই ঝড়ে গাছ চাপা পড়ে তিনজনের মৃত্যুর খবরও পাওয়া গেছে। গেল এক সপ্তাহের ভেতর এমন ঝড় হয়েছে উত্তরবঙ্গের বেশ কয়েকটি এলাকায়। হবিগঞ্জ এবং ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায়ও হয়েছে ঝড়।

তবে গেল এক মাসে সারাদেশের কোথাও পর্যাপ্ত বৃষ্টিপাত হয়নি। ফলে অনেক অঞ্চলে ধান ও আম উৎপাদনে বিপর্যয়ের আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। গাছে গাছে আমের গুটি দেখা গেলেও দীর্ঘ পাঁচ মাস বৃষ্টি না হওয়ায় চিন্তিত হয়ে পড়েছেন আম ব্যবসায়ী ও বাগান মালিকরা।

আবাহাওয়া অফিস বলছে, বঙ্গোপসাগর থেকে থেকে প্রচুর মেঘ উড়ে আসছে দেশের আকাশে। এ কারণে এপ্রিলে পর্যাপ্ত বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

এদিকে আবার কিছু এলাকায় আবহাওয়ার অপরিচিতের মতো আচরণ করছে এবার। যেমন নীলফামারী জেলার সৈয়দপুরে গত কয়েকদিন ধরে সারারাত কুয়াশা পড়ছে। রাতের তাপমাত্র ষোল থেকে সতেরতে উঠানামা করছে। আবার দিনের বেলায় গরম পড়ছে প্রচণ্ড। যার প্রভাব পড়ছে ওই অঞ্চলের বোরো ধানের ফলনে। আবহাওয়া অফিস বলছে, বৃষ্টি হলে প্রকৃতি ফিরে আসবে পুরনো চেহারায়।

আবহাওয়া অধিদফতর পূর্বাভাসে জানিয়েছে, রংপুর ও সিলেট বিভাগরে দুয়েক জায়গায় বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেইসঙ্গে দেশের অন্যান্য কিছু অঞ্চলে অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ শুষ্ক থাকতে পারে আবহাওয়া।

এছাড়াও ভোররাত থেকে সকাল পর্যন্ত কোনো কোনো অঞ্চলে হালকা থেকে মাঝারি ধরনের কুয়াশা পড়ারও সম্ভাবনা রয়েছে। তবে দেশব্যাপী রাত এবং দিনের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে।