স্থায়ী কমিটির বৈঠক শেষে নতুন কর্মসূচির ঘোষণা দিল বিএনপি

দলের নীতিনির্ধারণী ফোরাম স্থায়ী কমিটির বৈঠক শেষে নতুন কর্মসূচি ঘোষণা দিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। কারাবন্দি ও অসুস্থ দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে আগামী বুধবার ঢাকাসহ সারা দেশে বিক্ষোভ সমাবেশের ঢাক দিয়েছে দলটি।

শনিবার (৭ মার্চ) রাতে গুলশানে দলের চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে স্থায়ী কমিটির সভা শেষে এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘করোনাভাইরাস সংক্রমণ নিয়ে সরকার উদাসীন বলে মনে করছে বিএনপি। বিমানবন্দরসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে দেশে প্রবেশের স্থানগুলোতে করোনা শনাক্তের পর্যাপ্ত ব্যবস্থা সরকার না নেওয়ায় এ বিষয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে দলটির স্থায়ী কমিটি।’

বাংলাদেশেও যেকোনো সময় করোনার সংক্রমণ হতে পারে বলে জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান- আইইডিসিআর পরিচালক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা যে আশঙ্কার কথা বলেছেন তা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

একইসঙ্গে মুজিববর্ষে দেশে কে আসবে, না আসবে সেদিকে অতটা নজর না দিয়ে বরং করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে সরকারের পর্যাপ্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করা উচিত বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

এদিকে কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে তার স্বজনরা যে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন সে বিষয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, আমরা আগেও উদ্বেগ প্রকাশ করেছি। সরকার চেয়ারপারসনকে চিকিৎসা না দিয়ে যেভাবে বন্দি করে রেখেছে তাতে তাকে জীবিত আমরা ফেরত পাবো কি না তা নিয়ে শঙ্কা রয়েছে।

স্থায়ী কমিটির এই সভা সন্ধ্যায় ৬টায় শুরু হয়ে রাত সোয়া ৯টায় শেষ হয়। লন্ডন থেকে স্কাইপের মাধ্যমে সভায় সভাপতিত্ব করেন ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। এতে অংশ নেন ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, ড. আবদুল মঈন খান, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, মির্জা আব্বাস, নজরুল ইসলাম খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, বেগম সেলিমা রহমান ও ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু।