একদিনেই পাবনায় প্রায় ৮০ হাজার লিটার তেল জব্দ, ৫ লাখ টাকা জরিমানা

পাবনার আমিনপুর থানা এলাকার কাশিনাথপুরে ৩টি ও সুজানগরে একটি গোডাউনে পৃথক অভিযান চালিয়ে প্রায় ৮০ হাজার লিটার সয়াবিন তেল জব্দ করেছে পাবনা জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ ও জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর । এসময় গোডাউনগুলোর মালিকদেরকে পাঁচ লাখ ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

বুধবার (১১ মে) দুপুর থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত কাশিনাপুর বাজারের সুনীল কুমার সাহা, লক্ষণ কুমার সাহা ও মির স্টোর এবং সুজানগরের ঘোষ স্টরের গোডাউনে এই অভিযান চালানো হয়।

বেড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহা. সবুর আলী ঢাকা মেইলকে জানান, প্রথমে অভিযান চালানো হয় কাশিনাথপুর বাজারের বেড়ার উপজেলার অংশের সুনীল ও লক্ষণের গোডাউনে। এসময় সুনিলের গোডাউনে সোয়াবিন ৬০ ড্রাম, পাম ওয়েল ৩০ ড্রাম ও ৩০ ড্রাম সুপার তেল জব্দ করা হয়। আর লক্ষণের গোডাউনে জব্দ করা হয় সোয়াবিন তেল ৩০ ড্রাম এবং পাম ওয়েল ৭২ ড্রাম। প্রত্যেক ড্রামে ২১০ লিটার তেল হিসেবে আনুমানিক ৪৫ হাজার লিটার তেল জব্দ করা হয়। অবৈধভাবে তেলগুলো দীর্ঘদিন মজুদ করে রাখার অপরাধে সুনিলকে দুই লাখ এবং লক্ষণকে দেড় লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

অপরদিকে সাঁথিয়ার সহকারী ভূমি কমিশনার ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মো. মনিরুজ্জামান ঢাকা মেইলকে বলেন, কাশিনাথপুর বাজারের বেড়ার সাঁথিয়ার অংশের মীর মোহাম্মদ আবুল খায়েরের মালিকাধীন মীর স্টোরের গোডাউনে অভিযান চালিয়ে ৩০ হাজার লিটার সোয়াবিন ও পাম ওয়েল তেল জব্দ করা হয়। এসময় গোডাউন মালিককে ৭০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

এছাড়াও একই দিনে পাবনার সুজানগরে অভিযান চালিয়ে অবৈধভাবে মজুদ করে রাখা ৩ হাজার ১৩৭ লিটার সোয়াবিন তেল জব্দ করেছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর।

পাবনা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক জহিুরুল ইসলাম জানান, দুপুরের দিকে সুজানগরের শহরের ঘোষ স্টরে এসব তেল জব্দ করা হয়ে। এসময় দোকান মালিককে ১ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। জব্দকৃত তেলের মধ্যে রয়েছে ১৪৩৫ লিটার খোলা সয়াবিন তেল ও ১৭০২ লিটার বোতলজাত সয়াবিন তেল।

জব্দকৃত তেলগুলো স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসনের উপস্থিতিতে সরকার নির্ধারিত পূর্বের মূল্যে দুই দিনের মধ্যে বিক্রি করা জন্য নির্দেশ দেয়া হয়েছে বলেও দায়িত্বপালনকারী কর্মকর্তারা জানান।