যেসব অঞ্চলে ঝড়-বৃষ্টি হবে টানা ৪ দিন

দেশের উত্তরাঞ্চল, সিলেট, ময়মনসিংহ জেলায় আগামী মঙ্গলবার পর্যন্ত মৌসুমি বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। এরপর কয়েকদিন বৃষ্টিপাত বন্ধ এবং আগামী শনিবার থেকে আবারও বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে।

এ ব্যাপারে আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ আরিফুল ইসলাম বলেন, এখন বর্ষা মৌসুম। তাই মৌসুমি বৃষ্টিপাত অব্যাহত রয়েছে। ১৪ তারিখ পর্যন্ত দেশের রংপুর ও তার আশপাশের জেলায়, সিলেট, ময়মনসিংহ জেলাতে বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। এরপর কয়েকদিন বৃষ্টিপাত বন্ধ থাকতে পারে। ১৯ তারিখ থেকে আবারও বৃষ্টিপাত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

এসব জেলার বৃষ্টিপাতের কিছু প্রভাব পড়বে রাজধানীতে। আবহাওয়াবিদ আরিফুলের দেয়া তথ্যমতে, ১৪ তারিখ পর্যন্ত রাজধানীতে হঠাৎ হঠাৎ বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। ১৯ তারিখ থেকে পুনরায় দেশের উত্তরাঞ্চল, উত্তর পূর্ব ও ময়মনসিংহ অঞ্চলে বৃষ্টিপাত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ঢাকাতেও কিছুটা বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে।

এদিকে আজ শনিবার সন্ধ্যা ছয়টা পর্যন্ত আবহাওয়ার সর্বশেষ বার্তায় বলা হয়েছে, মৌসুমি বায়ুর অক্ষ পাঞ্জাব, হরিয়ানা, উত্তর প্রদেশ, বিহার, হিমালয়ের পাদদেশীয়, পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চল হয়ে আসাম পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। এর একটি বর্ধিতাংশ উত্তর বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। মৌসুমি বায়ু বাংলাদেশের উপর সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরে মাঝারি থেকে প্রবল অবস্থায় বিরাজ করছে।

রাজশাহী, রংপুর, ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অধিকাংশ জায়গায় এবং ঢাকা, খুলনা ও বরিশাল বিভাগের অনেক জায়গায় স্থাীয়ভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি/বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী থেকে অতিভারী বর্ষণ হতে পারে। সারাদেশে দিন এবং রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে।

এদিকে সক্রিয় মৌসুমি বায়ুর প্রভাবে উপকূলে ঝোড়ো হাওয়ার আশঙ্কায় সমুদ্রবন্দরগুলোকে তিন নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। আবহাওয়ার এক সামুদ্রিক সতর্কবার্তায় এ কথা জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

এতে বলা হয়, সক্রিয় মৌসুমি বায়ুর প্রভাবে উত্তর বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকা এবং সমুদ্রবন্দরসমূহের ওপর দিয়ে ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে।

এজন্য চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ৩ (তিন) নম্বর পুনঃ ৩ (তিন) নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারসমূহকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত উপকূলের কাছাকাছি থেকে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে।