ভারতের হারে হতাশ উপমহাদেশ

বিশ্বকাপে বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা ও পাকিস্তানের সেমিফাইনালের স্বপ্ন টিকিয়ে রাখতে রবিবারের ম্যাচে ভারতের জয় চেয়েছিলো সবাই। কিন্তু গোটা উপমহাদেশকে হতাশ করেছে বিরাট কোহলিরা। ইংল্যান্ডের কাছে ৩১ রানে হেরে গেছে দুই বারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা।

ইংলিশদের ৩৩৮ রানের জবাবে শুরুটা ভালো হয়নি ভারতের। শূন্য রানে ফিরে যান ওপেনার লোকেশ রাহুল। তবে দ্বিতীয় উইকেটে অধিনায়ক বিরাট কোহলিকে নিয়ে দারুণ এক জুটি গড়ে তোলেন আরেক ওপেনার রোহিত শর্মা। স্কোর বোর্ডে ১৩৮ রান যোগ করেন এ দুই ব্যাটসম্যান। এরপর অধিনায়ক কোহলি ৬৬ রানে বিদায় নিলে রিশাভ পান্তের সঙ্গে ৫২ রানের জুটি গড়েন রোহিত। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ১০২ রানের ইনিংস খেলেছেন রোহিত।

এর পর কিছুটা আক্রমণাত্মক ব্যাটিং করতে থাকেন হার্দিক পান্ডিয়া। ৩৩ বলে ৪টি চারের সাহায্যে ৪৫ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। তবে অপর প্রান্তে কেউই রানের গতি বাড়াতে চেষ্টা না করলে বড় হার নিয়েই মাঠ ছাড়তে হয় ভারতকে। শেষ দিকে মহেন্দ্র সিং ধোনি ৩১ বলে ৪২ রানের ইনিংস খেলে অপরাজিত ছিলেন। নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৫ উইকেটে ৩০৬ রান তুলে থামে ভারত।

ইংল্যান্ডের পক্ষে ৫৫ রানের খরচায় ৩টি উইকেট নিয়েছেন লিয়াম প্লাঙ্কেট। ২টি উইকেট পান ক্রিস ওকস।

এর আগে টস জিতে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেন ইংলিশ অধিনায়ক ইয়ন মরগান। জেসন রয় ও জনি বেয়ারস্টো ওপেনিং জুটিতে ১৬০ রান করেন। ৫৭ বলে ৭টি চার ও ২টি ছক্কায় ৬৬ রানের ইনিংস খেলেন রয়।

দ্বিতীয় উইকেটেও রুটকে নিয়ে দারুণ ব্যাট করেন বেয়ারস্টো। গড়েন ৪৫ রানের জুটি। বেয়ারস্টোকে বিদায় করে এ জুটি ভাঙতেই অধিনায়ক ইয়ন মরগানকেও দ্রুত আউট করে ভারত। এরপর চতুর্থ উইকেটে জো রুটের সঙ্গে হাল ধরেন স্টোকস। স্কোর বোর্ডে ৭০ রান যোগ করেন এ দুই ব্যাটসম্যান। এরপর এ জুটি ভাঙলে এক প্রান্তে ঝড় তুলে স্কোর বড় করতে থাকেন স্টোকস।

শেষ ওভারে জাসপ্রিত বুমরাহর বলে আউট হওয়ার আগে ৫৫ বলে ৭৯ রানের ক্যামিও ইনিংস খেলেন স্টোকস। তবে দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ১১১ রানের ইনিংস খেলেছেন বেয়ারস্টো।

ভারতের পক্ষে ৬৯ রানের খরচায় ৫টি উইকেট নিয়েছেন মোহাম্মদ শামি।