বিদ্রোহী প্রার্থী হওয়ায় চাটমোহর পৌরসভার মেয়র আ.লীগ থেকে বহিষ্কার

আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী ঘোষণার পরেও বিদ্রোহী প্রার্থী হওয়ায় পাবনার চাটমোহর পৌরসভার মেয়র ও চাটমোহর উপজেলা আ’লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মির্জা রেজাউল করিম দুলালকে আওয়ামী লীগের দলীয় সকল পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

সোমবার (১৪ ডিসেম্বর) রাতে পাবনা জেলা আ’লীগের দপ্তর সম্পাদক এ্যাড. আব্দুল আহাদ বাবু স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, চাটমোহর পৌর নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত দলীয় প্রার্থী এ্যাড. সাখাওয়াত হোসেন সাখোর বিরুদ্ধে ‘বিদ্রোহী প্রাথী’ হিসেবে নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ায় চাটমোহর উপজেলা আ’লীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক এবং জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মির্জা রেজাউল করিম দুলালকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের গঠনতন্ত্রের ৪৭ (ঠ) ধারা মোতাবেক দলীয় সকল পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

একই সাথে মির্জা দুলালের পক্ষে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করায় তার ছোট ভাই চাটমোহর পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মির্জা আবু হায়াত কামাল জুয়েলকে ‘কেন তার বিরুদ্ধে সাংগাঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে না’ তিন দিনের মধ্যে তার জবাব চেয়ে কারণ দর্শানো নোটিশ প্রদান করা হয়েছে।

এ বিষয়ে সদ্য বহিস্কৃত আওয়ামী লীগ নেতা ও পৌর মেয়র মির্জা রেজাউল করিম দুলাল বলেন, বহিস্কারের বিষয়টি জানতে পেরেছি। আমি দলকে ভালবাসি, দলের প্রতি, বঙ্গবন্ধুর আদর্শের প্রতি নূন্যতম ভালবাসার কোন ঘাটতি আমার নেই। আমি গত পৌর নির্বাচনেও স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে জয় লাভ করেছি। বার বার আমাকে দলীয় মনোনয়ন থেকে বঞ্চিত করা হচ্ছে। যাকে প্রতিবার দলীয় মনোনয়ন দেওয়া হয়, তিনি একটিবারও নির্বাচিত হতে পারেন না। এমনকি তার জামানতও বাজেয়াপ্ত হয়েছে। আমার প্রতি জনগণের আস্থা আছে। সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলে জনগণ আবারও আমাকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করবে। তবে দলের নীতি নির্ধারকদের সঙ্গে এই বিষয়ে কথা বলছি। দলের সিদ্ধান্ত অবশ্যই মানতে হবে।

চাটমোহর পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মির্জা আবু হায়াত কামাল জুয়েল বলেন, বিষয়টি চিঠির মাধ্যমে জানতে পেরেছি। তবে কারণ দর্শানো নোটিশ এখনও হাতে পাইনি। চিঠি পাওয়ার পর নোটিশের জবাব দেব।