বন্ধ হচ্ছে রাষ্ট্রায়ত্ত সব পাটকল, ২৫ হাজার শ্রমিককে বাধ্যতামূলক অবসর

অবশেষে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে দেশের সব রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল। আর এসব পাটকলে কর্মরত প্রায় ২৫ হাজার স্থায়ী শ্রমিককে ‘গোল্ডেন হ্যান্ডশেকে’ (বাধ্যতামূলক অবসরে) পাঠানোর সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করেছে সরকার। পরবর্তী সময়ে এসব পাটকল সরকারি-বেসরকারি অংশীদারিত্বের (পিপিপি) আওতায় চলবে।

রবিবার (২৮ জুন) এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী।

আগামী সেপ্টেম্বরের মধ্যে শ্রমিকদের সকল পাওনা পরিশোধ করা হবে, ফলে আন্দোলনরত পাটকল শ্রমিকদের ঘরে ফিরে যাওয়ারও অনুরোধ করেন বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী।

তিনি জানান, রাষ্ট্রায়ত্ত ২৫টি পাটকলে এই মুহূর্তে ২৪ হাজার ৮৮৬ জন স্থায়ী শ্রমিক রয়েছেন। তাদের গোল্ডেন হ্যান্ডশেকের মাধ্যমে অবসর দেওয়া হবে। এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর সম্মতিও পাওয়া গেছে।

পাটকল শ্রমিকদের গোল্ডেন হ্যান্ডশেক দেওয়ার পর পিপিপির (সরকারি-বেসরকারি অংশীদারিত্ব) আওতায় পাটকলগুলোর আধুনিকায়ন করে উৎপাদনমুখী করা হবে। তখন এসব শ্রমিক সেখানে চাকরি করার সুযোগ পাবেন বলেও মন্ত্রী জানান।

গোলাম দস্তগীর গাজী বলেছেন, রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল বন্ধ করে দেওয়া হবে। পাটকলগুলো বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় পরিচালিত হবে। সরকারের পক্ষে বছরের পর বছর পাটকলের এত লোকসান বহন করা সম্ভব নয়। গত ৪৮ বছরে সরকারকে এই পাট খাতে ১০ হাজার ৬৭৪ কোটি টাকা লোকসান দিতে হয়েছে।