পাবনা সদরের মতো বেড়াতেও ভরাডুবির পথে নৌকা!

বেড়া উপজেলার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বেশিরভাগ ইউনিয়নে বিজয়ের পথে দলের বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) প্রার্থীরা। ৭ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৬ জন স্বতন্ত্র প্রাথী এগিয়ে রয়েছেন। ফলে পাবনা সদর উপজেলার মতো বেড়া উপজেলাতেই ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা ভরাডুবির পথে ।

বুধভার (৫ জানুয়ারি) রাত ৮টা এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কেন্দ্রভিত্তিক অসমর্থিত সূত্রে এ তথ্য পাওয়া গেছে। উপজেলা নির্বাচন কার্যালয়ে বেসরকারিভাবে ফলাফল ঘোষণা করেন উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও দায়িত্বপ্রাপ্ত রিটার্নিং কর্মকর্তারা।

এখন পর্যন্ত যারা এগিয়ে- হাটুরিয়া-নাকালিয়ার ইউনিয়নে আনারস প্রতীকের আব্দুল হামিদ, কৈটোলাতে ঘোড়া প্রতিকের মহসিন উদ্দিন পিপুল, চাকলা ঘোড়া প্রতীকের মো. ইদ্রিস আলী , নতুন ভারেঙ্গা ইউনিয়নে আনারস প্রতীকের আবু দাউদ , জাতসাকিনী ইউনিয়নে আনারস প্রতীকের আবুল কালাম আজাদ মানিক , রুপপুরে আনারস প্রতীকের মো. মহন ও ঢালারচর ইউনিয়নে নৌকার প্রতীকের কোরবান আলী।

উপজেলার সাতটি ইউনিয়নের এ নির্বাচন। ইউনিয়নগুলো হলো-হাটুরিয়া-নাকালিয়া, কৈটোলা, চাকলা, নতুন ভারেঙ্গা, জাতসাকিনী, রুপপুর ও ঢালারচর ইউনিয়ন। এ উপজেলার দু’টি ইউনিয়ন পুরান ভারেঙ্গা এবং মাসুন্দিয়া ইউপিতে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আগেই নৌকা প্রতীকের দুইজন চেয়ারম্যান প্রার্থী বিজয় লাভ করেছেন।

এর আগে সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত টানা ভোটগ্রহণ শেষে সন্ধ্যায় ভোটগণনা শুরু হয়। সকাল থেকেই ভোটারদের উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট দিতে দেখা গেছে। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে কেন্দ্রগুলোতে ভোটারদের দীর্ঘ লাইন লক্ষ্য করা যায়।

বেড়া উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মাহমুদা আক্তার গণমাধ্যমকে জানান, যুমনা ও পদ্মার তীর ঘেষা এই উপজেলার ৭টি ইউনিয়নে মোট ১ লাখ ৬৮ হাজার ৬৮৩ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। কেন্দ্রের সংখ্যা প্রায় একশ।