পাবনা শহরের বিভিন্ন স্থানে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া চলছে

পাবনা পৌরসভা নির্বাচন ঘিরে হঠাৎ করে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। আব্দুল হামিদ রোড, শালগাড়িয়ার গোডাউন মোড়, মেরিল বাইপাস, সরদার পাড়াসহ শহরের বিভিন্ন স্থানে আওয়ামীলী প্রার্থী ও বিদ্রোহী প্রার্থীদের সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া চলছে।

প্রচার-প্রচারণার শেষ দিন বৃহস্পতিবার (২৮ জানুয়ারি) দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত দুই প্রার্থীর পাল্টাপাল্টা শোডাউন চলে। সন্ধ্যার পরই শহরের বিভিন্ন ওয়ার্ডে দুই মেয়র প্রার্থীদের সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া খবর পাওয়া গেছে।

বিভিন্ন স্থানে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া খবর এবং শহরের ভেতরের দুই গ্রুপের মুখোমুখি শোডাউনের কারণে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। সঙ্গে সঙ্গে শহরের দোকানপাট বন্ধ হতে শুরু করে। যানবাহনগুলো শহর ত্যাগ করে।

ইতোমধ্যে বেশ কয়েকজন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। তবে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত (রাত ৮) কোনও নিহতের খবর পাওয়া যায়নি। হাসপাতাল রোডের প্রধানের নির্বাচনী কার্যলয় ভাংচুর করা হয়েছে।

এর আগে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থী আলী মুতর্জা সনি বিশ্বাস ও দলের বিদ্রোহী প্রার্থী (স্বতন্ত্র) শরিফ উদ্দিন প্রধান নির্বাচনী পথসভা ও শোডাউন করে। পাল্টাপাল্টি মিছিল-মিটিংয়ে দুপুর থেকেই গরম হয়ে উঠে পাবনা শহর।

বৃহস্পতিবার (২৮ জানুয়ারি) বিকেল সাড়ে চারটার দিকে বিশাল বিশাল মিছিল নিয়ে শহরে প্রবেশ করে নৌকার সমর্থকরা। পরে মিছিলগুলো প্রধান সড়ক আব্দুল হামিদ রোডশহ পাবনা শহরের বিভিন্ন সড়ক ও অলিগলি প্রদক্ষিণ করে।

শোডাউন শেষে শহরের বীর মুক্তিযোদ্ধা রফিকুল ইসলাম বকুল স্বাধীনতা চত্বরে নির্বাচনী অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন, যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ সেলিমের ছেলে শেখ ফাহিম ও স্কয়ার গ্রুপের পরিচালক অঞ্জন চৌধুরী পিন্টুসহ দলের নেতারা।

এর আগে দুপুরে শহরে বড় ধরনের শোডাউন করেছেন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) নারিকেল গাছ প্রতিকের প্রার্থী শরিফ উদ্দিন প্রধান। দুপুর ১২টার বিশাল মিছিল সহকারে আব্দুল হামিদ রোডে প্রবেশ করেন শরিফ উদ্দিন প্রধান। কয়েক হাজার নেতাকর্মী নিয়ে শহরে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে বানাবাণী হলের সামনে তার নির্বাচনী প্রধান কার্যালয়ের সামনে পথসভার মাধ্যমে শেষ হয়।

error: কাজ হবি নানে ভাই। কপি-টপি বন্ধ