পাবনায় প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় স্কুল গেটে ছাত্রীর ওপর হামলা

পাবনার ঈশ্বরদীতে প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ার কারণে এক বখাটের হুমকিতে স্কুলে যাওয়া বন্ধ হয়েছে দশম শ্রেণির এক ছাত্রীর।





আপন শেখ নামের ওই বখাটে প্রকাশ্যে স্কুল ছাত্রীর ওপর হামলা চালিয়ে তার মোবাইল সেট ছিনিয়ে নিয়েছে। তাকে প্রকাশ্যে স্কুল গেটে লাঞ্ছিত করেছে বলেও অভিযোগ করা হয়েছে।

এসব বিষয়ে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ করে ওই ছাত্রীর বাবা শহীদুল ইসলাম ঈশ্বরদী থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। তিনি তার পরিবার নিয়ে শহরের পিয়ারাখালি পশ্চিমপাড়ায় বসবাস করেন।

পুলিশ, প্রত্যক্ষদর্শী একাধিক শিক্ষার্থী ও অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, ঈশ্বরদীর এসএম মডেল সরকারি স্কুল এন্ড কলেজে সোমবার ভর্তি সংক্রান্ত কাজে যায় ওই শিক্ষার্থী।

সে ওই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের দশম শ্রেণির বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্রী। স্কুলের কাজ শেষ করে বাড়ি ফেরার সময় স্কুল গেটে রিক্সার জন্য অপেক্ষা করার সময় মো. আপন শেখ নামের এক বখাটে ওই ছাত্রীর ওপর হামলা চালিয়ে গলায় চাকু ঠেকিয়ে প্রথমে প্রেমের প্রস্তাবে রাজি হতে বলে। পরে তার মোবাইল সেট কেড়ে নিয়ে প্রেমে রাজি না হলে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে চলে যায়।

এসময় ওই ছাত্রীর আর্তচিৎকারে তার সহপাঠি ও পথচারীরা এগিয়ে এলেও ততক্ষনে বখাটে আপন শেখ পালিয়ে যায়। তাৎক্ষনিকভাবে স্কুল অ্যান্ড কলেজের পক্ষ থেকে বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে মোবাইলে জানানো হয়। ইউএনও পিএম ইমরুল কায়েস তৎক্ষনাত ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কে এ বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহনের অনুরোধ জানান। এদিকে এ ঘটনার পর ওই ছাত্রী ভয়ে প্রাইভেট পড়া কিংবা স্কুলে যাওয়া বন্ধ করে দিয়েছে। পরিবারের লোকজনও ভীতসন্ত্রন্ত হয়ে পড়েছেন।

ছাত্রীর বাবা শহীদুল ইসলাম বলেন, শহরের পশ্চিমটেংরি পিয়ারাখালি এলাকার মৃত ইয়ারুল ইসলামের বখাটে ছেলে আপন শেখ (২৩) দীর্ঘদিন থেকে আমার মেয়েটিকে নানাভাবে প্রেম নিবেদন, কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছে। সে ফেসবুকে ফেইক আইডি খুলে আমার মেয়েকে কুরুচিপূর্ণ ম্যাসেজ প্রদান, নানাভাবে টাকা-পয়সা চাওয়া, এমনকি প্রেমে রাজি না হলে প্রাণনাশের হুমকি পর্যন্ত দিয়েছে।

এসব নিয়ে এলাকায় একাধিকবার শালিস বৈঠক করেও তাকে নিষেধ করা হয়েছে। সর্বশেষ সোমবার তার স্কুল গেটে প্রকাশ্যে মোবাইল ছিনিয়ে নেওয়ার ঘটনায় আমরা শঙ্কিত হয়ে পড়েছি। মেয়েটি ভয়ে লেখাপড়া ছেড়ে আতঙ্কগ্রস্থ হয়ে পড়েছে। নানাভাবে হুমকি ও ভয়ভীতি দেওয়ায় প্রাইভেট পড়তে যাওয়া কিংবা স্কুলে যাওয়া বন্ধ হয়ে গেছে মেয়েটির।

এসব বিষয়ে সরকারি এসএম মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ আয়নুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনায় আমরা ক্ষুব্ধ। স্কুলের পক্ষ থেকে অপরাধীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য উপজেলা প্রশাসন ও থানায় সুপারিশ করা হয়েছে।

ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আসাদুজ্জামান বলেন, লিখিত অভিযোগটি পেয়েছি, বিষয়টি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

error: কাজ হবি নানে ভাই। কপি-টপি বন্ধ