পাবনায় ২৪ ঘণ্টায় ১৭ জনের করোনা শনাক্ত, একজনের মৃত্যু

সারা দেশের মতো পাবনাতেও করোনা করোনাভাইরাসের রোগী ও করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। পাবনায় ২৪ ঘণ্টায় ১৭ জন করোনা ভাইরাসের রোগী শনাক্ত হয়েছে। একই সময়ে একজন মারা গেছে। ফলে জেলায় করোনা ভাইরাসে মৃত্যু সংখ্যা দাঁড়াল ১২ জনে।

বৃহস্পতিবার (৮ এপ্রিল) দুপুরে রাজশাহী বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য) ডা. হাবিবুল আহসান জানান। তবে শনাক্ত ও মৃতের ঠিকানা-পরিচয় নিয়ে জেলা প্রশাসন থেকে এব্যাপারে কোনও তথ্য পাওয়া যায়নি।

তিনি জানান, রাজশাহী বিভাগের আট জেলায় গত ২৪ ঘণ্টায় ২০১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে রাজশাহী জেলায় ৪১ জন, নওগাঁয় দুই জন, নাটোরে ১৯ জন, জয়পুরহাটে তিন জন, বগুড়ায় ৯১ জন, সিরাজগঞ্জে ২৮ জন ও পাবনায় ১৭ জন রয়েছেন। একই সময় বগুড়ায় একজন ও পাবনায় একজন করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা যান।

রামেক হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. সাইফুল ফেরদৌস জানান, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ৪৪ জন রোগী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তাদের মধ্যে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় আইসিইউতে রাখা হয়েছে আট জনকে। এছাড়াও করোনা উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন ৩৯ জন। তাদের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে।

এর আগে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সোমবার (৫ এপ্রিল) ও মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) চার জনের মৃত্যু হয়েছে। মৃতরা হচ্ছেন– রাজশাহীর দুর্গাপুর উপজেলার আরিফুল (৪৩), নওগাঁ জেলার রাজ্জাক (৬০), নগরীর দড়িখরবোনা এলাকার রেজাউল করিম ও সালেক (৬০)। এছাড়াও বুধবার (৭ এপ্রিল) বাংলাদেশ রেস্তোঁরা মালিক সমিতি রাজশাহী জেলা শাখার সদস্য তারিকুল ইসলাম শেপ (৫৩) করোনায় রামেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। গত ২৮ মার্চ রামেক হাসপাতালের চিকিৎসক এমএ হান্নানসহ (৪৯) আরেকজনের মৃত্যু হয়।

রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. সাইফুল ফেরদৌস জানান, করোনার সংক্রমণ গত কয়েক সপ্তাহের চেয়ে এখন অনেক বেশি। হাসপাতালের ২৫ ও ২৭ নম্বর ওয়ার্ডটি করোনা রোগীদের জন্য নতুন করে করা হয়েছে। বাড়ানো হয়েছে চিকিৎসার সরঞ্জাম। রোস্টার করে চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা সেবা দিচ্ছেন। তবে কেবিন ও আইসিইউতে রোগী পরিপূর্ণ হয়ে গেছে।

>> পাবনার নিয়মিত ভিডিও পেতে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন এবং বেল আইকনটি চালু করুন। সাবস্ক্রাইব করতে এখানে ক্লিক করুন