পাবনায় মানুষিক রোগীকে পিটিয়ে গুরুতর জখম

জমিজমা সংক্রান্ত পূর্ব শত্রুতার জেরে পাবনার সাঁথিয়ায় গোলাম ফারুক (৪০) নামের এক মানুষিক রোগীকে পিটিয়ে জখম করেছে প্রতিপক্ষ হিমেল গংরা। অপরদিকে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে তারাই নিজের রান্নাঘরের খরকুটায় আগুন দেয় হিমেল গংরা। ঘটনাটি ঘটেছে সাঁথিয়া পৌরসভাধীন দৌলতপুর মহল্লায়।

অভিযোগে জানা গেছে, গতশুক্রবার বিকেলে মানষিক রোগী গোলাম ফারুক বাড়ির পাশে পাকা সড়কে বের হলে জমিজমা সংক্রান্ত পূর্ব শত্রুতার জের ধরে হিমেল গংরা তাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। এক পর্যায়ে তাকে লাঠিদ্বারা পিটিয়ে গুরুতর জখম করে। এতে গোলাম ফারুকের চোখে প্রচন্ড আঘাত প্রাপ্ত হয়। এ সময় তার চিৎকারে আশপাশের লোকজন আগাইয়া আসিলে তারা আরও ক্ষিপ্ত হইয়া ফারুকদের গেটের দরজার সামনে আসিয়া টিনের বেড়া ভাংচুর করে ও খুন জখমের হুমকি দিয়ে চলে যায়।

এ ঘটনায় গুরুতর আহত ফারুকের মা জাহানারা বেগম বাদী হয়ে হিমেলসহ ৭জন আসামী করে সাঁথিয়া থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে। অভিযোগের খবর পেয়ে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে হিমেল গংরা নিজেদের রান্না ঘরের খরকুঠায় আগুন দিয়ে থানায় অভিযোগ দিলে পুলিশের তদন্তে তার সত্যতা পাওয়া যায় নাই্।

এ ব্যাপারে ঘটন্রা তদন্তকারী কর্মকর্তা সাঁথিয়া থানার এসআই একরামুল হক পিটিয়ে জখমের অভিযোগের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান আগুন দেয়ার কোন সত্যতা পাওয়া যায় নাই।