পাবনায় মনোমুগ্ধকর পরিবেশনায় রাশিয়ার ন্যাশনাল ইউনিটি ডে পালন

বিশ্ববিখ্যাত গানের দল মস্কো কয়ারের মনোমুগ্ধকর পরিবেশনায় পাবনায় রাশিয়ার ন্যাশনাল ইউনিটি ডে পালিত হয়েছে।

শনিবার রাতে রাশিয়ার রাষ্ট্রায়ত্ত্ব পরমাণু প্রতিষ্ঠান রোসাটমের আয়োজনে এ অনুষ্ঠানে রোসাটম ও রূপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

মস্কো কয়ারের চোখ ধাঁধানো অ্যাক্রোবেটিক পরিবেশনায় ঐতিহ্যবাহী রীতিতে রাশিয়ার সাংস্কৃতিক বৈশিষ্ট্য তুলে ধরার পাশাপাশি বাংলাদেশ ও রাশিয়ার বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক নিয়েও গান পরিবেশন করেন শিল্পীরা। সন্ধ্যা থেকে শুরু করে গানের আয়োজন চলে গভীর রাত অবধি।

আয়োজকরা জানান, ঐক্যবদ্ধ রাশিয়ানদের  অভ্যুত্থানে ১৬১২ সালের ৪ নভেম্বর পোলিশ-লিথুয়ানিয়ান দখলদার বাহিনীর হাত থেকে মুক্ত হয় মস্কো শহর।

ঐতিহাসিক দিনটির স্মরণে ৪ নভেম্বর জাতীয় ঐক্য দিবস হিসেব পালন করে রাশিয়া। প্রতিবছর ৪ নভেম্বর রাশিয়ার উদ্যোগে নিজ দেশসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এই দিনটি জাঁকজমকভাবে উদযাপিত হয়। এরই অংশ হিসেবে পাবনায় এই দিবসটি উদযাপনের উদ্যোগ নেয়া হয়। উল্লেখ্য, আগামী বছরেই পূর্ন হচ্ছে বাংলাদেশ-রুশ কুটনৈতিক সম্পর্কের ৫০ বছর। 

রাশিয়ার আর্থিক ও কারিগরী সহায়তায় পাবনা জেলার ঈশ্বরদীরতে নির্মিত হচ্ছে দেশের প্রথম পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র- রূপপুর এনপিপি। প্রকল্পটির জেনারেল কন্ট্রাকটর হিসেবে দায়িত্ব পালন করছে এটমস্ত্রয় এক্সপোর্ট। রূপপুর এনপিপিতে প্রায় সাড়ে তিন হাজার রুশ নাগরিক কাজ করছেন। রাশিয়ান শিল্পীরা মনোজ্ঞ সংগীত পরিবেশন করে। নেচে গেয়ে মাতিয়ে তোলে গোটা অনুষ্ঠান।

পাবনার পুলিশ সুপার মহিবুল ইসলাম খান বিপিএম, ঈশ্বরদী পৌর মেয়র ইসহাক মালিথা, পাবনা প্রেসক্লাবের সভাপতি এবিএম ফজলুর রহমান, সম্পাদক সৈকত আফরোজ আসাদ, পাবনা সংবাদপত্র পরিষদ সভাপতি আব্দুল মতীন খান, সাধারণ সম্পাদক শহীদুর রহমান শহীদ, পাবনা প্রেসক্লাবের সাবেক সম্পাদক উৎপল মীজার্, আখিনুর ইসলাম রেমন, পাবনা প্রেসক্লাবের সহ সম্পাদক তপু আহমেদ, এটিএন নিউজ প্রতিনিধি রিজভী জয়সহ ঈশ্বরদীর সাংবাদিক এবং রাশিয়া এবং বাংলাদেশের পরমানু প্রকল্পের সঙ্গে যুক্তরা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।