পাবনায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত আসামি ছাত্রলীগ নেতা, দলীয় কোন্দলের শিকার

গ্রেফতারের কয়েক ঘন্টা পর পাবনা সদর উপজেলায় সেই কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হওয়া তানজীব শেখ (৩০) ছাত্রলীগের সাবেক নেতা। সে আওয়ামী লীগের দলীয় কোন্দলের শিকার বলে স্থানীয় নেতারা দাবি করেছন।

নিহত তানজীব পাবনা শহরতলীর রামচন্দ্রপুর এলাকার বাবু শেখের একমাত্র ছেলে।

পাবনা সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও সদর আসনের এমপি গোলাম ফারুক প্রিন্সের ব্যক্তিগত সহকারী শেখ রাসেল আলী মাসুদ বলেন, ‘সাবেক ছাত্রলীগ নেতা শেখ তানজীব আওয়ামী লীগের একজন একনিষ্ঠ কর্মী ছিলেন। তিনি কোনো বড় অপরাধী নন। আমাদের জানা মতে, তার বিরুদ্ধে কোনো মামলাও নেই। তানজীবের মতো ডেডিকেটেড এবং একনিষ্ঠ কর্মীকে ক্রসফায়ারে হত্যা করা হবে, তা বিশ্বাস করা কঠিন।’

তানজীব এলাকাগত দ্বন্দ্ব এবং দলের অভ্যন্তরীণ কোন্দলে বন্দুকযুদ্ধের শিকার হয়েছেন বলে দাবি করছেন আওয়ামী লীগ নেতা ও পাবনার শহীদ বুলবুল কলেজের সাবেক ভিপি শেখ রাসেল আলী মাসুদ।

এরই মধ্যে এ ঘটনায় এলাকায় বিক্ষোভ করেছে স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীসহ সাধারণ মানুষ।

উল্লেখ্য, বুধবার (৮ জুলাই) ভোরে উপজেলার শিবরামপুর স্লুইচ গেট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ বলছে, তানজীবের বিরুদ্ধে বিস্ফোরকসহ পাঁচটি মামলা রয়েছে।

পাবনার পুলিশ সুপার (এসপি) শেখ রফিকুল ইসলাম জানান, পুলিশের একটি টহল দল আজ ভোরের দিকে পাবনা সদর উপজেলার শিবরামপুর স্লুইচ গেট এলাকায় টহল দিচ্ছিল। এ সময় একদল অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী আচমকা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। এ সময় পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। একপর্যায়ে বন্দুকযুদ্ধে তানজিল শেখ নামের এক সন্ত্রাসী নিহত হন। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একটি পিস্তল ও একটি রিভলবার উদ্ধার করেছে।