পাবনায় নিখোঁজের ৪ দিন পরে যুবদল নেতার গলিত মৃতদেহ উদ্ধার

পাবনা শহর থেকে নিখোঁজের ৪ দিন পর পাবনার আটঘরিয়া উপজেলা থেকে শাজাহান আলী (৩৫) নামের এক ব্যবসায়ী ও যুবদল নেতার অর্ধ গলিত মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

সোমবার (৫ এপ্রিল) বিকেলে উপজেলার দেবোত্তর ইউনিয়নের গঙ্গারামপুর গ্রামের টয়লেটের হাউজ থেকে মৃতদেহটি উদ্ধার করা হয়। নিহত শাজাহান পাবনা শহরের শালগাড়িয়া মহল্লার তোফাজ্জল হোসেন ছেলে এবং হাসপাতাল সড়কের শাপলা প্লাষ্টিক চত্বরে নয়ন ফটোস্ট্যাটের মালিক।

গঙ্গারামপুর গ্রামের আবুল কাশেমের বাড়ির পেছনে টয়লেটের হাউজ থেকে দুগন্ধ ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয়রা একটি মৃতদেহ দেখতে পেয়ে পুলিশকে জানায়। পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনা স্থলে গিয়ে মৃতদেহ উদ্ধার করে।

আটঘরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাফিজুর রহমান জানান, স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে ঘটনা স্থলে আমরা যাই। এই বিষয়ে পাবনা সদর থানার একটি নিখোজ হওয়ার বিষয়ে লিখিত অভিযোগ ছিলো। সোমবার বিকেলে গঙ্গারামপুর এলাকায় একটি টয়লেটের কাছে এই যুবকের গলিত মৃতদেহ গলীত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। নিহতের স্বজনেরা লাশ সনাক্ত করেছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

স্থানীয় ও নিহতের স্বজনদের দাবি- ফটোস্ট্যাটের দোকানের পাশে এক নারীর সঙ্গে ওই যুবকের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। সেই সম্পর্কে ওই নারীর সঙ্গে তার অর্থনৈতিক লেনদেনও ছিল। আটঘরিয়ার যেই বাড়িতে মরদেহ পাওয়া গেছে তা ওই নারীর বোনের। ঘটনার পর থেকেই শিশু সন্তান ও স্বামীসহ পালাতক রয়েছেন।

জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক ইলিয়াস আহমেদ হিমেল রানা জানান, নিহত শাজাহান জেলা যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক ছিলেন। কেউ তাকে পরিকিল্পতভাবে হত্যা করেছে। আমরা ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও জড়িতদের দ্রুত গ্রেপ্তারের দাবি জানাচ্ছি।