পাবনায় নকল ব্যান্ডরোলসহ ১৫ লক্ষ বাংলা বিড়ি জব্ধ

বার্তা সংস্থা পিপ (পাবনা) : পাবনার দুলাই থেকে ১৫ লক্ষ নকল ব্যান্ডরোলসহ বাংলা বিড়ি আটক করেছে পাবনা রাজস্ব বিভাগ। এতে সরকারের চার লক্ষ তেষট্র্রি হাজার তিশ বত্রিশ টাকার রাজস্ব ফাঁকি দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

এ ব্যাপারে বাংলা বিড়িসহ দুটি বিড়ি কোম্পানীর বিরুদ্ধে রাজস্ব ফাকি দেওয়ার অভিযোগে মামলা হয়েছে।

পাবনা কাষ্টমস সুত্র জানা যায়, পাবনার বিভিন্ন বিড়ি মালিকরা দীর্ঘদিন নকল ব্যান্ডরোল ব্যবহার করে বিড়িতে রাজস্ব ফাকি দিচ্ছে। এ জন্য তারা যোগসাজশ করে গোপনে একাধিক স্থানে বিড়ির কারখানা স্থাপন করেছে।

তারা প্রধান কারখানায় আসল ব্যান্ডরোল ব্যবহার করলের শাখা কারখানা গুলোতে নকল ব্যান্ডরোলর ব্যবহার করছে। এতে সরকার বিশাল অংকের টাকার রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

পাবনার সাঁথিয়া ও সুজানগর উপজেলার দুলাই গ্রামে এমন বেশ কয়েকটি নকল ব্যান্ডরোলের বিড়ির কারখানা গড়ে উঠেছে। বিড়ির কারখানা দুলাই এলাকা ছাড়াও সাঁথিয়ার বিভিন্ন গ্রামেও স্থাপন করা হয়েছে।

কয়েকটি বিড়ির ফ্যাক্টারী সাঁথিয়ার গ্রামে হলেও নকল ব্যান্ডলের রাজস্ব ফাঁকির ব্যবসা করতে দুলাই ও চরদুলাই নেওয়া হয়েছে শাখা কারখানা। এখানে নকল ব্যান্ডলের বিড়ি তৈরি করে পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে দেশের বিভিন্ন উপজেলা ও জেলায়।

সোমবার (২৮ জুন) পাবনা রাজস্ব বিভাগ অভিযান চালিয়ে বাংলা বিড়ির ১৩ লক্ষ ৫০ হাজার নকল ব্যান্ডরোলসহ অন্য একটি কোম্পানীর ৮০ হাজার নকল ব্য্যান্ডরোলসহ বিড়ি জব্ধ করে ।

এলাকাবাসী জানান, এ গ্রাম থেকে প্রতিদিন রাতে ট্রাকে করে লক্ষ লক্ষ নকল ব্যান্ডোলের বিড়ি বিভিন্ন স্থানে পাঠানো হয়। এ বিড়ি গুলো দুলাইসহ আশপাশের গ্রামে তৈরি করা হয়।

এছাড়াও আরও অনেক ব্যান্ডের বিড়ি রয়েছে সে সব বিড়ির অধিকাংশই তৈরি হয় নকল ব্যান্ডল ব্যাবহার করে। অভিযোগ রয়েছে অনেক সময় আটককৃত বিড়ির অধিকাংশই টাকার বিনিময়ে গোপনে ছেড়ে দেওয়া হয়। ইতোপেুর্বে শিহাব বিড়ির বড় চালান আটক করা হলেও অজ্ঞাত কারণে তা আলোর মুখ দেখেনি।

পাবনা কাষ্টমসের রাজস্ব কর্মকর্তা সোলাইমান হোসেন জানান, বাংলা বিড়ির ফ্যাক্টারী থেকে নকল ব্যান্ডলের বিড়ি আটক করা হয়েছে এবং রাজস্ব ফাকির মামলা করা হয়েছে।