পাবনায় দুই প্রার্থীর পাল্টাপাল্টি সমাবেশ, যুবলীগ নেতার ঘরে আগুন

পাবনার ভাঙ্গুড়ায় নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ঘুমন্ত যুবলীগ নেতার ঘরে আগুন দেয়ার অভিযোগ উঠেছে প্রতিপক্ষের লোকজনের বিরুদ্ধে।

উপজেলার পারভাঙ্গুড়া ইউনিয়নের পারভাঙ্গুড়া (৯ নং ওয়ার্ড) গ্রামে ওয়ার্ড যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কোরবান আলীর ঘরে রোববার গভীর রাতে এই ঘটনা ঘটে। এ সময় ঘরের দরজা বাইরে থেকে আটকে রাখায় তার চিৎকারে প্রতিবেশীরা তাকে উদ্ধার করে। এ ঘটনায় ওই গ্রামে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। তবে প্রতিপক্ষের ইউপি সদস্য এ ঘটনাকে ষড়যন্ত্র বলে দাবি করেছেন। পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করছে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, আগামী ২৩ ডিসেম্বর নির্বাচনকে কেন্দ্র করে পারভাঙ্গুড়া ওয়ার্ডে মেম্বার পদে বর্তমান ইউপি সদস্য হারুনুর রশীদ ও আবদুর রশিদ প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তফসিল অনুযায়ী আগামী মাসের ৭ তারিখ থেকে নির্বাচনী প্রচারণার কথা থাকলেও বিধি লংঘন করে মেম্বার প্রার্থীরা প্রতিদিনই মিছিল-মিটিং করে প্রচারণা চালাচ্ছেন। এর প্রেক্ষিতে রোববার রাতে এই দুই প্রার্থীর সমর্থকরা কয়েক দফা পাল্টাপাল্টি মিছিল ও সমাবেশ করেন। রাত একটা পর্যন্ত এই কর্মকাণ্ড চলে।

এ অবস্থায় কর্মসূচি শেষ করে রাত দেড়টার দিকে আব্দুর রশিদের সমর্থক ওয়ার্ড যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কোরবান আলী নিজ ঘরে গিয়ে শুয়ে পড়েন। এরপর রাত সাড়ে তিনটার দিকে পেট্রোলের গন্ধে তার ঘুম ভেঙে গেলে ঘরের জানালা ও ভেতরে আগুন দেখতে পান। এ সময় তিনি ঘর থেকে বের হতে চাইলে বাহির থেকে দরজা আটকানো থাকায় বের হতে পারেনি। পরে তার চিৎকারে প্রতিবেশীরা এসে দরজা খুলে তাকে উদ্ধার করে এবং আগুন নেভায়। আগুনে ঘরের জানালা সহ ভিতরের কিছু জিনিসপত্র পুড়ে যায়। তবে সে সময় আগুনের ধেঁায়ায় কোরবান আলী অসুস্থ হয়ে পড়েন।

কোরবান আলী অভিযোগ করেন, নির্বাচন ও পূর্ব বিরোধকে কেন্দ্র করে পরিকল্পিতভাবে এ ঘটনা ঘটানো হয়েছে। থানায় মৌখিক অভিযোগ দেয়া হয়েছে। এখন পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে লিখিত অভিযোগ দিব। অভিযোগের বিষয়ে বর্তমান ইউপি সদস্য হারুনুর রশীদ বলেন, আগুন দেওয়ার ঘটনা সব সাজানো নাটক। এটা তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র।

অপর প্রার্থী আবদুর রশীদ বলেন, আমার লোকজনকে মিছিল ও সমাবেশে আসতে বাধা দেয় হারুন ও তার লোকজন। তবে এ ঘটনা সম্বন্ধে আমি বিস্তারিত জানিনা।

ঘটনার তদন্তকারী পুলিশ কর্মকর্তা এসআই মুরাদ বলেন, মৌখিক অভিযোগে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে। লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পরে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।