পাবনায় প্রবাসী স্বামীর দ্বিতীয় বিয়ে, ছেলের ঘর-বাড়ি ত্যাগ, অভিমানে গৃবধুর আত্মহত্যা

পাবনার সাঁথিয়ায় স্বামী ও সন্তানের প্রতি অভিমান করে নাজমা খাতুন (৪০) নামে এক গৃহবধু আত্মহত্যা করেছে। ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার রাতে উপজেলার ধুলাউড়ি চরপাড়া গ্রামে।

সে ওই গ্রামের ইটালী প্রবাসী আবু সাইদের স্ত্রী। এ ঘটনায় নাজমার ভাইমোজাম প্রাং বাদী হয়ে সাঁথিয়া থানায় একটি ইউডি মামলা দায়ের করেন।

নাজমার ভাই মোজাম প্রামাণিক জানান, দীর্ঘদিন ধরে তার বোন নাজমার স্বামী আবু সাইদ ইটালি প্রবাসী। স্বামী স্ত্রীর দ্বন্দের কারণে প্রায় বছর দু’এক হলো তাদের সাথে যোগাযোগ নেই। নাজমা দুই সন্তানের জননী। ছোট ছেলে পাবনা কওমী মাদরাসায় লেখা পড়া করে। বড় সন্তান কয়েকদিন হলো রাগ করে বাড়ি ছেড়ে চলে গেছে।

অপরদিকে স্বামী দ্বিতিয় বিয়ে করার গুজব, ঠিকমত টাকা পয়সা না দেয়া,যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন সব মিলিয়ে সে অভিমানে শুক্রবার রাতের কোন একসময় তার শয়ন ঘরের আড়ার সাথে ওড়না পেচিয়ে আত্মহত্যা করে। শনিবার সকালে প্রতিবেশী এক বৃদ্ধা নাজমার ফ্রিজে রাখা জিনিস আনতে তার ঘরে গেলে দরজা বন্ধ থাকায় জানালা দিয়ে তাকাতেই ঝুলন্ত অবস্থায় দেখে বাড়ির লোকজনকে খবর দেয়। পরে ধুলাউড়ি পুলিশ ফাঁড়িতে খবর দিলে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে পাবনা মর্গে প্রেরণ করেন।

ধুলাউড়ি পুলিশ ফাঁড়ির দায়িত্বরত এসআই সরোয়ার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন। লাশ উদ্ধার করে মর্গেপ্রেরণ করা হয়েছে। এ ব্যাপারে সাঁথিয়া থানায় একটি ইউডি মামলা হয়েছে।