পাবনায় এক ভিক্ষুকের ছুরিকাঘাতে আরেক ভিক্ষুক নিহত

জাকাতের কাপর নিতে এসে পাবনায় এক ভিক্ষুকের ছুরিকাঘাতে আল্লাদী (৪৬) নামের এক আরেক নারী ভিক্ষুক নিহত হয়েছেন। শনিবার (৮ মে) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে শহরের দিলালপুর পানির ট্যাংকির নিচে এ ঘটনা ঘটে।

পূর্ববিরোধের জের ধরে এই হত্যাকাণ্ডটি ঘটেছে বলে দাবি করছেন পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাসুদ আলম।

প্রত্যক্ষদর্শী ভিক্ষুক আসমা খাতুন জানান, প্রতিদিনের মতো কয়েকজন ভিক্ষুক বড় বাজার এলাকাসহ আশপাশ মহল্লায় ভিক্ষা ও জাকাতের কাপড় সংগ্রহের জন্য দিলালপুর মহল্লার বড়বাজার-সংলগ্ন পানির ট্যাংকির নিচে অবস্থান নেন। এ সময় ভিক্ষুক শিল্পীর মা আল্লাদীর (৪৫) সঙ্গে আরেক নারী ভিক্ষুকের বাগবিতণ্ডা শুরু হয়।

একপর্যায়ে দুজনের মধ্যে চুল ধরে টানাটানি শুরু হয়। এ সময় পাশে থাকা লুঙ্গি ও পাঞ্জাবি পরিহিত এক মধ্যবয়সী পুরুষ এসে নারী ভিক্ষুক আল্লাদীকে ধারালো ছুরি দিয়ে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করেন। এ সময় অন্য ভিক্ষুকগুলো ধাওয়া দিলে পুরুষ ভিক্ষুকটি পালিয়ে যান।

পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাসুদ আলম বলেন, হত্যাকারী ভিক্ষুকের বাড়ি সুজানগর উপজেলায় বলে জানা গেছে। স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়। আল্লাদী শহরের অনন্ত বাজার-সংলগ্ন দ্বীপচরে ভাড়া বাড়িতে থাকতেন।

ঘটনাস্থলে একটি বাড়ির সিসি ক্যামেরা ফুটেজ দেখে ঘাতককে চিহ্নিত করা হচ্ছে বলে জানান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার।

পাবনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাসিম আহমেদ জানান, মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় মামলার বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন।