পাবনার ১০০ তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ পাচ্ছেন সরকারি বাড়ি

তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ হওয়ায় বাড়ি থেকে বিতাড়িত হওয়া পাবনার ১০০ তৃতীয় লিঙ্গের মানুষকে বাড়ি করে দিবে সরকার- এমন ঘোষণা দিয়েছেন পাবনা জেলা প্রশাসক (ডিসি) কবীর মাহমুদ।

রবিবার (১৭ জানুয়ারি) জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সম্মেলনকক্ষে জেলা উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির মাসিক সভায় এ সিদ্ধান্তের কথা জানান তিনি। সভায় জেলার বিভিন্ন পর্যায়ের ভাতাভোগীদের তথ্য উপস্থাপন করে জেলা সমাজসেবা অধিদফতর।

সভায় সমাজের অবহেলিত তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের প্রসঙ্গে জেলা প্রশাসক কবীর মাহমুদ বলেন, ‘তৃতীয় লিঙ্গের মানুষেরা পরিবার ও সমাজ থেকে ছিটকে পড়ে ছিন্নমূল হয়ে পড়েন। তাদের দু’মুঠো আহারের ব্যবস্থা হলেও থাকার জায়গা কেউ দেন না। এ বিষয়টি সরকার বিবেচনায় নিয়ে তাদের কষ্ট লাঘবের উদ্যোগ নিয়েছে। তারা যেন কষ্টে না থাকেন সরকার সে ব্যাপারে সচেষ্ট। পাবনাতেও প্রায় একশ’ তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ আছেন। তারা সরকারিভাবে নির্মিত বাড়ি পাবেন।’

এসময় সমাজসেবা অধিদফতর জানায়, তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের জন্য নির্মাণ করা প্রায় ৫০০ বর্গফুটের প্রতিটি ঘরে থাকবে দুটি কক্ষ, একটি বারান্দা, একটি টয়লেট ও একটি রান্নাঘর। দুর্যোগসহনীয় এসব ঘর হবে টেকসই এবং প্রতিটি ঘরেই থাকবে সোলার সিস্টেম আর বজ্রপাত নিরোধক ব্যবস্থা।

পাবনার ১০০ তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ সরকারি বাড়ি পাচ্ছেন- এমন সংবাদে খুশি তৃতীয় লিঙ্গ নিয়ে কাজ করা বিভিন্ন সংগঠন।এবিষয়ে থার্ড জেন্ডার ডেভেলপমেন্ট অর্ডানাইজেশন পাবনার সভাপতি মিতুল ও সাধারণ সম্পাদক শহিদুল সুমি জানান, সরকারের এটা মহতী উদ্যোগ। কারণ হতভাগ্য তৃতীয় লিঙ্গের মানুষগুলো বাড়ি থেকেই বিতাড়িত হন। পরিবারগুলো তাদের তাড়িয়ে দিতে পারলেই যেন বেঁচে যায়। এ ছাড়া পৈতৃক সম্পত্তি থেকে তারা বঞ্চিত হন। সরকারিভাবে বাড়ি বা ঘর পেলে তারা অনেক উপকৃত হবেন।

error: কাজ হবি নানে ভাই। কপি-টপি বন্ধ