পাবনার শীর্ষ ১৮ আ.লীগ নেতাকে নোটিশ, হতে পারেন বহিষ্কার 

দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে পাবনা জেলা, উপজেলা ও পৌর আওয়ামী লীগের শীর্ষস্থানীয় ১৮ নেতা কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছে জেলা আওয়ামী লীগ। পাবনা পৌরসভা নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষে কাজ করায় তাদের এই নোটিশ পাঠিয়েছে জেলা আওয়ামী লীগ।

বৃহস্পতিবার (২৮ জানুয়ারি) পাবনা জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক গোলাম ফারুক প্রিন্স স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। নোটিশপ্রাপ্তদের আগামী ১১ ফেব্রুয়ারির মধ্যে জবাব দিতে বলা হয়েছে।

নোটিশে বলা হয়েছে, নোটিশপ্রাপ্তরা পৌর নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আলী মর্তুজা বিশ্বাস সনির বিরোধিতা করে বিদ্রোহী প্রার্থী জেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি শরিফ উদ্দিন প্রধানের পক্ষে প্রত্যক্ষভাবে অংশগ্রহণ করছেন। যা দলের গঠনতন্ত্রের ৪৭ (ঠ) ধারার পরিপন্থি। এমতাবস্থায় নোটিশপ্রাপ্তদের বিরুদ্ধে কেন শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হবে না জানতে চেয়ে তার যৌক্তিক কারণ ব্যাখ্যা করে জবাব দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হলো।

যাদের নোটিশ দেয়া হয়েছে তারা হলেন- জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আবুল কালাম আজাদ বাবু, আব্দুল হামিদ মাস্টার, যুগ্ম সম্পাদক আবু ইসাহাক শামীম, অ্যাডভোকেট বেলায়েত আলী বিল্লু, কৃষিবিষয়ক সম্পাদক আব্দুল বারী বাকী, দপ্তর সম্পাদক এডভোকেট আব্দুল আহাদ বাবু, প্রচার সম্পাদক কামিল হোসেন, ধর্ম সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, কোষাধ্যক্ষ আব্দুল হান্নান, শ্রম সম্পাদক সরদার মিঠু আহমেদ, কার্যকরী সদস্য ইমদাদ আলী বিশ্বাস, উপদেষ্টা ইদ্রিস আলী বিশ্বাস, আসম আব্দুর রহিম পাকন, লিয়াকত আলী, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মোশারফ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক সোহেল হাসান শাহীন, পৌর আওয়ামী লীগ সভাপতি তসলিম হাসান সুমন, সাধারণ সম্পাদক শাজাহান মামুন।

এব্যাপারে জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক গোলাম ফারুক প্রিন্স বলেন, দলের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের নির্দেশে তাদের শোকজ নোটিশ দেওয়া হয়েছে। জবাব পেলে দলের হাইকমান্ডের নির্দেশনা অনুযায়ী পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

error: কাজ হবি নানে ভাই। কপি-টপি বন্ধ