‘পাবনার সাবেক সাংসদ আরজুকে ক্ষমা চাইতে হবে, অন্যথায় আইনগত ব্যবস্থা’

পাবনা-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য খন্দকার আজিজুল হক আরজু নিজ বাসায় সংবাদ সম্মেলন ডেকে পাবনা প্রেসক্লাবের নির্বাচিত নেতৃবৃন্দের নামে বিষেদাগার ও কুরুচিপুর্ণ মন্তব্য করার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে পাবনা প্রেসক্লাবসহ বিভিন্ন সংগঠন।

তারা আগামী ৭ দিনের মধ্যে পাবনা প্রেসক্লাব কর্তৃপক্ষের কাছে ক্ষমা প্রার্থণা করার দাবি জানিয়েছেন। অন্যথ্যা তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও জানান নেতৃবৃন্দ।

বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের পরিপ্রেক্ষিতে গত ১১ মার্চ দুপুরে পাবনা-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য খন্দকার আজিজুল হক আরজু বেড়া উপজেলার আরজু পার্ক কনভেনশন সেন্টার (নিজ বাসা) এক সংবাদ সম্মেলন ডাকেন। কয়েকটি পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হলেও উদ্দেশ্যে প্রণোদিতভাবে ও আক্রোশমূলক ভাবে তিনি শুধুমাত্র একটি পত্রিকার বিরুদ্ধে ব্যাণার তৈরি করে নানা অসত্য তথ্য দিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন।

এ সময় তিনি অপ্রাসঙ্গিকভাবে পাবনা প্রেসক্লাবের নির্বাচিত সভাপতি ও সম্পাদকের নামে মিথ্যাচার ও কুরুচিপুর্ন বক্তব্য দেন। যা স্বাধীন সাংবাদিকতার প্রতি হুমকি স্বরুপ।

পাবনা প্রেসক্লাব সভাপতি এবিএম ফজলুর রহমান, সম্পাদক সৈকত আফরোজ আসাদ, পাবনা সংবাদপত্র পরিষদ সভাপতি আব্দুল মতীন খান, সাধারণ সম্পাদক শহীদুর রহমান শহীদ যৌথ বিবৃতিতে বলেন, পাবনা প্রেসক্লাবের একটি অতীত ঐতিহ্য রয়েছে।

এই প্রতিষ্ঠান কখনই প্রতিহিংসার সাংবাদিকতাকে উৎসাহিত করেনা। কখনই কাউকে উদ্দেশ্যেমুলকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করে সংবাদ পরেবেশনকে উৎসাহিত করেনা। তারা সব সময়ই পেশাগত সাংবাদিকতাকে প্রধান্য দিয়ে থাকে। তাই পাবনা-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য খন্দকার আজিজুল হক আরজু আগামী ৭ দিনের মধ্যে ক্ষমা প্রার্থণা না করে তবে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থাসহ অন্যান্য পদক্ষেপ নেওয়া হবে।