পাকশীতে ছাত্রলীগ নেতা গুলিবিদ্ধ

পাবনার পাকশী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সহ-সাধারণ সম্পাদক উমাইর নূর রায়হান গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। মঙ্গলবার (২১ এপ্রিল) রাত সাড়ে ১০টার দিকে পাকশী ইউনিয়নের নতুন রূপপুর (সিএনজি পাম্প) এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। সে নতুন রূপপুর গ্রামের ফুটবল মাঠ এলাকার ফজলুল হকের ছেলে।

উমাইর নূর রায়হানের মামা আজিজুল হক জানান, রাতে নতুন রূপপুর (সিএনজি পাম্প) এলাকা দিয়ে উমাইর নূর রায়হান ও তাঁর বন্ধু তুহিন হেঁটে নিজ বাড়ির দিকে আসছিল। এ সময় পিছন থেকে কে বা কারা  উমাইর নূরকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়ে। একটি গুলি তাঁর কোমরের নিচে এসে লাগে।

পাকশী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি শিমুল জানান, রাত সাড়ে দশটার দিকে রায়হান বিশেষ কাজে মোটর সাইকেল যোগে পাকশী পুলিশ ফাঁড়িতে যাচ্ছিল। পথে মধ্যে পাকশী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মিরাজ হাসানকে সঙ্গে নেওয়ার জন্য তার বাড়ির সামনে যায়। সেখানে মোটর সাইকেল থামিয়ে মিরাজকে ফোনে কথার বলার সময় মোটর সাইকেল যোগে অজ্ঞাত দূর্বৃত্তরা এসেছে পেছনে কোমরের নিচে গুলি করে পালিয়ে যায়।

তিনি আরো জানান, উমাইর নূরকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে প্রথমে ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসার পর তাঁকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

রূপপুর পারমাণবিক বিদুৎ প্রকল্প পুলিশ ফাঁড়ির দায়িত্বপ্রাপ্ত এসআই বিকাশ চক্রবর্তী জানান, গুলিবিদ্ধ অবস্থায় রায়হান মোটর সাইকেল চালিয়ে ফাঁড়িতে আসে। সেখান থেকে পুলিশের গাড়িতে করে ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। তার শরীরে একটি গুলির চিহৃ রয়েছে।

ঈশ্বরদী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফিরোজ কবির ছাত্রলীগ নেতা গুলিবিদ্ধের কথা নিশ্চিত করে বলেন, গুলিবিদ্ধ উমাইর নূর রায়হানকে উন্নত চিকিৎসার জন্যে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। গুলি করার কারণ নিশ্চিত হওয়া যায়নি, পূর্ব বিরোধ হোক আর যে কারণেই হোক দূর্বৃত্তদের আটকের জন্যে পুলিশী অভিযান চলছে।