নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাচ্ছে পাবনার পরিস্থিতি!

ধীরে ধীরে নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাচ্ছে পাবনার করোনা ভাইরাসের পরিস্থিতি। প্রতিদিনই আক্রান্তের আগের সংখ্যা ভেঙে নতুন রেকর্ড তৈরি হচ্ছে।

বিভাগের মধ্যে পাবনার অবস্থান উদ্বেগজনক। সব উপজেলায় বাড়ছে মৃত্যু ও শনাক্তের সংখ্যা।

২৫০ শয্যার পাবনা জেনারেল হাসপাতালে করোনা চিকিৎসা পরিস্থিতি আরও নাজুক। পিসিআর ল্যাব না থাকায় নমুনা পরীক্ষার সঙ্গে এখন তীব্র আকার ধারণ করেছে অক্সিজেন সংকট।

বিশ্লেষকরা বলছেন, যেভাবে ক্রমেই অবনতির দিকে যাচ্ছে পাবনার পরিস্থিতি তাতে এই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে যেতে পারে।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বলছে, যে সংখ্যক রোগী করোনার উপসর্গ নিয়ে হাসপাতলে আসছেন তাদেরকে চিকিৎসা দেওয়ার মতো সামর্থ্য হাসপাতালের নেই।

তারা বলছেন, অসংখ্য রোগীকে তারা সাপোর্ট দিতে পারছেন না। রোগীদের যে ধরনের চিকিৎসা দরকার তার ব্যবস্থা এখানে নেই। রোগীর মধ্যে অধিকাংশেরই অক্সিজেন প্রয়োজন হচ্ছে।

এছাড়াও জেলার স্বাস্থ্য পরিস্থিতি নিয়ে নজর রাখেন এমন বিশ্লেষকেরা বলছেন, সম্প্রতি সময় জেলায় করোনা ভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু সংখ্যা বাড়ছে। পরিস্থিতি জটিলই মনে হচ্ছে।

পাবনার সিভিল সার্জন ডা. মনিসর চৌধুরী বলেন, জেলার স্বাস্থ্য বিভাগ তাদের সর্বোচ্চ চেষ্টাটুকু করে যাচ্ছে করোনা মোকাবিলায়। তারপরও যদি মানুষ নিজে সচেতন না হয় তাহলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাবে। জেলায় পিসিআর ল্যাব ও সেন্ট্রাল অক্সিজেন ব্যবস্থা চালুর জন্য সবাই মিলে চেষ্টা করছেন বলে জানান সিভিল সার্জন। 

পাবনার জেলা প্রশাসক বিশ্বাস রাসেল হোসেন বলেন, করোনা লকডাউনে মানুষকে ঘরে রাখতে ও সচেতন করতে প্রতিদিন মাঠে কাজ করছে জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা।

গত ১১ দিনে ১৮৭টি ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেছে জেলা প্রশাসন। এ সময় তারা ৯৯৬টি মামলায় ১ হাজার ১১ জনকে জরিমানা করেছে। আর এ সব ভ্রাম্যমাণ আদালতে ৩ লাখ ১৩ হাজার ৫৬০ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে।