ঈশ্বরদীতে এক নারী সার্জেন্টের দাপুটে অভিযানে তটস্থ মোটরসাইকেল চালকরা

ঈশ্বরদীতে সদ্য আগত নারী ট্রাফিক সার্জেন্ট অত্যন্ত সাহসিকতা ও দাপটের সাথে অভিযান পরিচালনা করছেন। বৈধ কাগজ ও হেলমেট ছাড়া কোন বাইক চালক এই নারী সার্জেন্টের সামনে পড়লে আর রক্ষা নেই। জরিমানা ও মামলা ছাড়া নিস্তার পাচ্ছে না কেউই। তাই মোটরবাইক চালকরা এখন তটস্থ। ভয়ে এই সার্জেন্টের চোখ এড়িয়ে চলার চেষ্টা করছে।

গুরুত্বপূর্ণ ঈশ্বরদী শহরে ট্রাফিক সার্জেন্ট অপান্বিতা বৈরাগীর প্রায় দুই মাস হলো আগমন ঘটেছে। এরই মধ্যে তাঁর কর্মকান্ড মোটরবাইক চালকদের মধ্যে ভীতির সঞ্চার করেছে।

ঈশ্বরদী ট্রাফিক পুলিশের পরিদর্শকের কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, লকডাউনের মধ্যে মোটরবাইকের উপর চার শতাধিক মামলা ও জরিমানা হয়েছে। এরমধ্যে ডিজিটাল প্রায় ১৫০টি আর এনালগ ২৫০টিরও বেশী। এসব মামলার বেশীরভাগই দায়ের হয়েছে সার্জেন্ট অপান্বিতার অভিযানে। অন্যান্য সার্জেন্টের সামনে পড়লে অনুনয়-বিনয় করলে বা প্রভাবশালী কারো ফোন পেয়ে মাফ করে দেয়ার নজির রয়েছে। কিন্তু এই নারী সার্জেন্টের কাছে আইনের বাইরে কোন কিছু নেই। কোন প্রভাবশালীর ফোন বা হুমকির তোয়াক্কা তিনি করেন না। তিনি অত্যন্ত সাহসিকতার সাথে মামলা দায়ের ও জরিমানা আদায় করে সরকারি কোষাগার ভারী করছেন।

এসব বিষয় নিয়ে শনিবার সার্জেন্ট অপান্বিতার সাথে কথা বলতে চাইলে তিনি কোন মতামত দিতে রাজী হননি। তাঁর কর্মকান্ডে বৈধ কাগজপত্র ও হেলমেটবিহীন ভূক্তভোগী মোটরবাইক চালকরা ক্ষুদ্ধ হলেও সাধারণ মানুষ আইনের বিধিবিধান রক্ষায় সন্তোষ প্রকাশ করেছেন।