নমুনা করালেই পাবে ২৫ হাজার টাকা, পজিটিভ আসলে পাবে লাখ টাকা

প্রতিদিনই হু হু করে বাড়ছে করোনা ভাইরাসের আক্রান্তের সংখ্যা। চীন থেকে ছড়িয়ে পড়া এই ভাইরাসটি মোকাবেলায় হিমশিম খাচ্ছে। দেশের মানুষকে এর থেকে রক্ষা করতে নতুন নতুন পরিকল্পনা করতে হচ্ছে আক্রান্ত দেশগুলোকে। তবুও দিশে পাচ্ছে না তারা।

বিশ্ব আক্রান্তের শীর্ষ তালিকায় অস্ট্রেলিয়াও। সেখানে ফের আক্রান্ত বেড়েছে। দেশটির ভিক্টোরিয়া রাজ্যে দুই সপ্তাহে সর্বোচ্চ মৃত্যু হয়েছে। নতুন করে এই ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে বেশি বেশি পরীক্ষার প্রয়োজন মনে করছেন রাজ্যের প্রধান ড্যানিয়েল অ্যান্ড্রুস। নাগরিকদের পরীক্ষায় উৎসাহিত করতে অভিনব উদ্যোগ নিলেন তিনি।

রাজ্যের নাগরিকদের করোনা টেস্ট করালে তাদের দেয়া ৩০০ অস্ট্রেলিয়ান ডলার যা বাংলাদেশি টাকায় ২৫ হাজার টাকা এবং টেস্টের ফল পাওয়া পর্যন্ত তাদের থাকতে হবে আইসোলেশনে। আর পজিটিভ হলে পাবেন আরও ১৫০০ ডলার, বাংলাদেশি টাকায় ১ লাখ ২৬ হাজার টাকা। এসব অর্থ দেওয়া সরকারি তহবিল থেকে।

যে কেউ এই টাকা পাবে না। তাকে অবশ্যই চাকরিজীবী হতে হবে এবং হাতে ছুটি থাকা চলবে না। এজন্য সরকারের কাছে বেতল স্লিপ দেখাতে হবে নয়তো মুচলেকা দিতে হবে।

নগদ অর্থ প্রদান করোনার সংক্রমণ রুখতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে মনে করছেন অ্যান্ড্রুস। তার দাবি, অনেকের করোনার লক্ষণ থাকলেও তারা আইসোলেশনে থাকছেন না কিংবা পরীক্ষা করাচ্ছেন না।

এই সিদ্ধান্ত নেওয়ার ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে ভিক্টোরিয়া প্রধান বলেছেন, অনেক চাকরিজীবী ছুটি না থাকায় লক্ষণ থাকলেও করোনা পরীক্ষা করাচ্ছেন না কিংবা আইসোলেশনে থাকছেন না।

কারণ ছুটি নেই বলে বেতন কাটার ভয় তাদের মনে। এজন্যই সরকার চাকরিজীবীদের মধ্যে পরীক্ষার হার বাড়াতে এই উদ্যোগ নিয়েছে।