ডা. নাসিমাকে ‘সর্বোচ্চ অফিসের’ রেফারেন্স দিয়ে হুমকি দেয়া হয়েছিল

জেকেজি হেলথ কেয়ারের করোনা ভাইরাসের নমুনা সংগ্রহ ও টেস্টের জালিয়াতির বিষয়টি জানতে পেরেছিল স্বাস্থ্য অধিদফতর। জালিয়াতির জন্য সতর্ক করে দেয়ায় অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (এডিজি) নাসিমা সুলতানাকে হুমকি দিয়েছিলেন  ডা. সাবরিনার স্বামী   জেকেজি হেলথকেয়ারের প্রধান নির্বাহী আরিফ চৌধুরী।

সোমবার (১৩ জুলাই) গণমাধ্যমকে এতথ্য জানিয়েছেন অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা।

নাসিমা সুলতানা জানান, টাকার বিনিময়ে জেকেজি নমুনা সংগ্রহ করছে, এই খবর পেয়ে তিনি মৌখিকভাবে আরিফুল হক চৌধুরীকে সতর্ক করেছিলেন। তিনি এও বলেছিলেন, জেকেজি অধিদফতর থেকে যে সহযোগিতা পাচ্ছে, সেগুলো বন্ধ করে দেওয়া হবে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে তিনি (আরিফ) সর্বোচ্চ অফিসের রেফারেন্স দিয়ে তাকে টেলিফোনে হুমকি দেন।

উল্লেখ্য,  গত ২৩ জুন জেকেজিতে অভিযান চালায় তেজগাঁও থানা পুলিশ। অভিযানে প্রতারণার মূল হোতা ও জেকেজির প্রধান নির্বাহী আরিফ চৌধুরীসহ ৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়। তাকে জিজ্ঞাসাবাদে এসব জালিয়াতিতে তার স্ত্রী জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতা চিকিৎসক সাবরিনার সম্পৃক্ততা উঠে আসে।

পরে রবিবার (১২ জুলাই) তাকে (সাবরিনা) তেজগাঁও বিভাগীয় উপ-পুলিশ কামশনার (ডিসি) কার্যালয়ে আনা হয়। সেখানে জিজ্ঞাসাবাদের পর তাকে গ্রেফতার দেখানো হয়। পরেরদনি  সোমবার (১৩ জুলাই) আদালতে হাজির করে তার ৪ দিনের রিমাণ্ড আবেদন করা হয়। আদালত সে সময় তিনদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে। একই সঙ্গে তার জামিন আবেদন খারিজ করে দেন আদালত।