করোনা আতঙ্কে ভর্তি করেনি কোনও হাসপাতাল, হাসপাতাল চত্তরেই পাবনার আইনজীবীর মৃত্যু

করোনায় আক্রান্ত না হলেও কোন হাসপাতালে ভর্তি না করায় বিনা চিকিৎসায় মারা গেলেন পাবনার বিশিষ্ট আয়কর আইনজীবী মো. লোকমান হোসেন (৭২)। (ইন্নালিল্লাহে—-রাজেউন)।

বৃহস্পতিবার (৯ জুলাই) সকাল সাড়ে ৮টার দিকে বগুড়া পপুলার ডায়গনষ্টিক সেন্টারে তার মৃত্যু হয়।

তিনি স্ত্রী ৩ মেয়ে এবং দুই ছেলে রেখে গেছেন। মৃত লোকমান হোসেন পাবনা সদর উপজেলার হেমায়েতপুর ইউনিয়নের রামচন্দ্রপুর গ্রামের বাসিন্দা এবং দৈনিক সমকালের সহ সম্পাদক মো. সাজ্জাদ হোসেনের পিতা।

মৃতের ছেলে সাজ্জাদ হোসেন জানান, বেশ কিছুদিন ধরে তার বাবা ডায়বোটিকস, হার্টসহ নানা শাররীক জটিলতায় ভুগছিলেন। কিন্তু করোনার কোন উপসর্গ ছিল না। কিছু পরীক্ষা নীরীক্ষার জন্য তিনি বগুড়ার পপুলার ডায়গনষ্টিক সেন্টারে যান। সেখানে কিছু টেষ্টও করান। কিন্তু বগুড়ার কোন হাসপাতাল তাকে ভর্তি করেনি। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে বগুড়া পপুলার ডায়গনষ্টিক সেন্টার চত্ত্বরেই তার করুণ মৃত্যু হয়।

রাতে নামাজে জানাজা শেষে পাবনা সদর উপজেলার হেমায়েতপুর ইউনিয়নের চরবাঙ্গাবাড়িয়া গ্রামের পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।

বিশিষ্ট আয়কর আইনজীবী মো. লোকমান হোসেনের মৃত্যুতে গভীর শোক ও সমবেদনা জানিয়েছেন পাবনা প্রেসক্লাব সভাপতি এবিএম ফজলুর রহমান, সম্পাদক সৈকত আফরোজ আসাদ, পাবনা সংবাদপত্র পরিষদ সভাপতি আব্দুল মতীন খান, সাধারণ সম্পাদক শহীদুর রহমান শহীদ, পাবনা রির্পোটার্স ইউনিটির সভাপতি হাবিবুর রহমান স্বপন, সাধারণ সম্পাদক কাজী মাহবুব মোর্শেদ বাবলা, কনজুমারস অ্যসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব) পাবনা জেলা শাখার সহ-সভাপতি জেবুনেচ্ছা ববিন এবং সাধারণ সম্পাদক এসএম মাহবুব আলম।