পাবনায় করোনায় এক যুবকের মৃত্যু, গোপনে দাফন

পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বিপুুল হোসেন (৩৫) নামের এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার (১৬ এপ্রিল) ভোরে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

বিপুল ছলিমপুর ইউনিয়নের জয়নগর বাবুপাড়া নুরজামাত প্রামাণিকের ছেলে। সে ঈশ্বরদীস্থ রূপপুর প্রকল্পের নিকিমথ কোম্পানিতে নির্মাণ শ্রমিক পদে কর্মরত ছিলেন।

এলাকাবাসীরা জানান, প্রায় এক সপ্তাহ আগে রূপপুর প্রকল্পের নিকমথ কোম্পানীতে চাকুরিরত অবস্থায় প্রতিষ্ঠানের নিয়মানুযায়ী বিপুল হোসেনের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়। সেখানে তাঁর করোনা পরীক্ষার ফলাফল পজেটিভ এলে তাকে প্রতিষ্ঠান থেকে ছুটি দেয়া হয়। বিপুল বিষয়টি কাউকে না জানিয়ে নিজ বাড়িতেই অবস্থান করেন। বৃহস্পতিবার রাতে বিপুলের শ্বাসকষ্ট দেখা দিলে তাঁকে দ্রুত ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। সেখানে অবস্থার অবণতি হলে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানেই চিকিৎধীন অবস্থায় তাঁর মৃত্যু হয়।

এদিকে, বিপুল হোসেনের করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হলেও পরিবারের লোকজন এ বিষয়টি গোপন রেখে শনিবার (১৬ এপ্রিল) সকাল ১১টায় জানাযা শেষে তাঁকে দাফন করেন। স্বাস্থ্যবিধি না মেনে বিপুল হোসেনের দাফন সম্পন্ন করায় এলাকাবাসী ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। এলাকাবাসীর মধ্যে করোনা আতংক ছড়িয়ে পড়েছে।

সলিমপুুর ইউনিয়নের অত্র ওয়ার্ডের সদস্য আসাদুল হক করোনায় মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেছেন আমরা বিষয়টি পড়ে জেনেছি।

ঈশ্বরদী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফিরোজ কবির জানান, বিপুল হোসেন করোনায় মৃত্যুবরণ করেছেন এ বিষয়টি আমরা শুক্রবার ৯টায় জেনেছি। ওই পরিবারের সদস্যদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। স্বাস্থ্যবিধি না মেনে অবাধে চলাফেরা করলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

error: কাজ হবি নানে ভাই। কপি-টপি বন্ধ