মৃত্যু বাড়াতে পারে করোনার নতুন ধরন : জরিপ

নতুন করে যুক্তরাজ্যে সংক্রমিত হওয়া করোনাভাইরাস এর নতুন স্ট্রেইন বা করোনার নতুন ধরন আক্রান্ত হয়ে আগামী বছর দেশটিতে মৃত্যুর সংখ্যা বাড়াতে পারে বলে এক জরিপে উঠে এসেছে।

ব্লুমবার্গের বরাত দিয়ে ভারতের এনডিটিভি বৃহস্পতিবার জানায়, লন্ডন স্কুল অব হাইজিন অ্যান্ড ট্রপিক্যাল মেডিসিনের সেন্টার ফর ম্যাথমেটিক্যাল মডেলিং ইনফেকশাস ডিজিজ এ জরিপ প্রকাশ করে।

এতে বলা হয়, করোনার নতুন ধরন ৫৬ শতাংশ বেশি ছোঁয়াচে। যার কারণে হাসপাতালে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা বেড়ে যেতে পারে।

ব্রিটিশ সরকার এর আগে জানিয়েছিল, নতুন ধরন ৭০ শতাংশ বেশি ছোঁয়াচে। যুক্তরাজ্য ছাড়াও অস্ট্রেলিয়া, ডেনমার্ক, সিঙ্গাপুর, ইতালি ও হংকংয়ে করোনার নতুন ধরনটি সংক্রমিত হয়েছে।

যুক্তরাজ্যের প্রধান বৈজ্ঞানিক উপদেষ্টা প্যাট্রিক ভেলান্স সপ্তাহের শুরুতে বলেন, করোনার নতুন ধরন এর ২৪টির বেশি রূপান্তর ঘটেছে। এটি করোনাভাইরাসের প্রোটিন অংশকে প্রভাবিত করতে পারে। এ কারণে পরীক্ষা, চিকিৎসা ও টিকা করোনার নতুন ধরনে কম কার্যকর হতে পারে।

তবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা-ডব্লিউএইচও জানায়, ভাইরাসটির নতুন ধরন নিয়ে ভীতির কিছু নেই। এটি মহামারির বিবর্তনের একটি স্বাভাবিক অংশ।

অন্যদিকে ইউরোপের স্বাস্থ্য নিয়ন্ত্রক সংস্থা বলছে, করোনার নতুন ধরন ঠেকাতেও টিকা কার্যকর হবে।

করোনার নতুন ধরনের সংক্রমণ ঠেকাতে যুক্তরাজ্যে গত নভেম্বর থেকে লকডাউন জারি করা হয়। সতর্কতা থেকে ৪০টি দেশ যুক্তরাজ্যের ওপর ফ্লাইট নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে।

এখন পর্যন্ত যুক্তরাজ্যে ২১ লাখের বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে মারা গেছেন ৭০ হাজারের কাছাকাছি।

…………………………………

নতুন করে যুক্তরাজ্যে সংক্রমিত হওয়া করোনাভাইরাস এর নতুন স্ট্রেইন বা করোনার নতুন ধরন আক্রান্ত হয়ে আগামী বছর দেশটিতে মৃত্যুর সংখ্যা বাড়াতে পারে বলে এক জরিপে উঠে এসেছে।

ব্লুমবার্গের বরাত দিয়ে ভারতের এনডিটিভি বৃহস্পতিবার জানায়, লন্ডন স্কুল অব হাইজিন অ্যান্ড ট্রপিক্যাল মেডিসিনের সেন্টার ফর ম্যাথমেটিক্যাল মডেলিং ইনফেকশাস ডিজিজ এ জরিপ প্রকাশ করে।

এতে বলা হয়, করোনার নতুন ধরনটি ৫৬ শতাংশ বেশি ছোঁয়াচে। যার কারণে হাসপাতালে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা বেড়ে যেতে পারে।

ব্রিটিশ সরকার এর আগে জানিয়েছিল, নতুন ধরন ৭০ শতাংশ বেশি ছোঁয়াচে। যুক্তরাজ্য ছাড়াও অস্ট্রেলিয়া, ডেনমার্ক, সিঙ্গাপুর, ইতালি ও হংকংয়ে করোনার নতুন ধরনটি সংক্রমিত হয়েছে।

যুক্তরাজ্যের প্রধান বৈজ্ঞানিক উপদেষ্টা প্যাট্রিক ভেলান্স সপ্তাহের শুরুতে বলেন, করোনার নতুন ধরনের ২৪টির বেশি রূপান্তর ঘটেছে। এটি করোনাভাইরাসের প্রোটিন অংশকে প্রভাবিত করতে পারে। এ কারণে পরীক্ষা, চিকিৎসা ও টিকা করোনার নতুন ধরনে কম কার্যকর হতে পারে।

তবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা-ডব্লিউএইচও জানায়, ভাইরাসটির নতুন ধরন নিয়ে ভীতির কিছু নেই। এটি মহামারির বিবর্তনের একটি স্বাভাবিক অংশ।

অন্যদিকে ইউরোপের স্বাস্থ্য নিয়ন্ত্রক সংস্থা বলছে, করোনার নতুন ধরন ঠেকাতেও টিকা কার্যকর হবে।

করোনার নতুন ধরনের সংক্রমণ ঠেকাতে যুক্তরাজ্যে গত নভেম্বর থেকে লকডাউন জারি করা হয়। সতর্কতা থেকে ৪০টি দেশ যুক্তরাজ্যের ওপর ফ্লাইট নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে।

এখন পর্যন্ত যুক্তরাজ্যে ২১ লাখের বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে মারা গেছেন ৭০ হাজারের কাছাকাছি।