উত্তাল বাংলাদেশ, নিরুত্তাপ পাবনা

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের প্রতিবাদে বিক্ষোভে পুলিশের সঙ্গে হেফাজতে ইসলামের সংঘর্ষের ঘটনা গোটা দেশ উত্তপ্ত। গত কয়েকদিন ধরে রাজধানী ঢাকা, ব্রাক্ষণবাড়িয়া ও চট্টগ্রামসহ দেশের বেশ কিছু এলাকায় হেফাজতসহ সমমনা ইসলামী দলগুলোর নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশ-বিজিবি ও ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীদের সঙ্গে ব্যাপক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটছে।

সংঘর্ষের ঘটনায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর গুলিতে ইতোমধ্যে অন্তত ১৭ জন নিহত হয়েছেন বলে দাবি করেছেন হেফাজতের ইসলামের নেতারা। অহত হয়েছেন অন্তত কয়েকশ নেতাকর্মী। এসব ঘটনায় প্রায় অর্ধশত পুলিশ সদস্যও আহত হয়েছেন।

মিছিল, সড়ক অবরোধ, গাড়িতে আগুন, সংঘর্ষ এবং গুলির ঘটনায় দেশজুড়ে উত্তাল অবস্থা হলেও নিরুত্তাপ পাবনা। পাবনায় হেফাজতে ইসলামের ডাকা রবিবার (২৮ মার্চ) হরতাল পালিত হয় নাই।

দেশের উল্টোচিত্র ছিল পাবনা শহরে। জেলার সর্বত্র সকল যানবাহন, দোকানপাট, মার্কেট, অফিস আদালত চালু ছিল। জনজীবন ছিল স্বাভাবিক। কোথাও হেফাজতের কর্মীদের পিকেটিং করতে দেখা যায়নি। তবে আওয়ামীলীগ শহরে হরতাল বিরোধী বিক্ষোভ মিছিল সমাবেশ করেছে। আইনশৃংখলা রক্ষায় শহরের মোড়ে মোড়ে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন ছিল।

হরতাল ছাড়াও মোদির বাংলাদেশ সফর ও হেফাজত নেতাকর্মীদের নিহতের ঘটনায় পাবনায় কোনও ধরনের বিক্ষোভ দেখতে পাওয়া যায়ণি। তবে রবিবার শহরে জেলা আওয়ামী লীগ হরতাল বিরোধী বিক্ষোভ মিছিল বের করে। তারা পাবনায় কোনও ধরনের হরতাল করতে দেবে না বলে ঘোষণা দেয়।