ঈদ শেষে কর্মস্থলে ফেরা হলো না পাবনার চাচা-ভাতিজার

পরিবারের সাথে ঈদুল ফিতর উদযাপন শেষে মোটরসাইকেল যোগে ঢাকায় কর্মস্থল ফিরছিলেন সেলিম রেজা ও তার ভাতিজা কামরুল ইসলাম। কিন্তু বেপরোয়া বাসের চাপায় কর্মস্থলে আর ফেরা হলো না তাদের। আবারও তাদের বাড়ি ফিরতে হলো, তবে লাশ হয়ে। ঈদের আনন্দের রেশ কাটতে না কাটতেই এখন তাদের পরিবারে চলছে শোকের মাতম।

বৃহস্পতিবার সকাল দশটার দিকে চাচা-ভাতিজার মরদেহ চাটমোহরের সমাজ গ্রামে এসে পৌঁছালে এক হৃদয় বিদারক পরিবেশ সৃষ্টি হয়।

নিহতের পরিবারে চলছে শোকের মাতম। তাদের মৃত্যুতে গ্রামজুড়ে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

নিহত সেলিম রেজা (২৮) চাটমোহর উপজেলার নিমাইচড়া ইউনিয়নের সমাজ দক্ষিণপাড়া গ্রামের মৃত আলহাজ মোজাহারুল ইসলামের ছেলে এবং কামরুল ইসলাম (২৫) তার আপন ভাতিজা ও একই গ্রামের আবু সাইদের ছেলে।  বুধবার বিকেল পৌনে ছয়টার দিকে টাঙ্গাইলে মোটরসাইকেল-বাসের সংঘর্ষে তারা নিহত হন।

নিহত সেলিম রেজার শ্বশুর আহাম্মদ আলী জানান, নিহত সেলিম রেজা বিজিবিতে এবং তার ভাতিজা কামরুল ইসলাম ঢাকায় একটি বেসরকারি কোম্পানিতে কর্মরত ছিলেন। নিহত সেলিমের দুথটি ছেলে রয়েছে। পরিবারের সাথে ঈদ উদযাপন শেষে বুধবার বিকেলে চাচা-ভাতিজা ঢাকায় কর্মস্থলের উদ্দেশে মোটরসাইকেল যোগে রওনা হন। তাদের বহনকারী মোটরসাইকেলটি টাঙ্গাইলের করোটিয়া মোড় এলাকায় পৌঁছলে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি যাত্রীবাহী বাস মোটরসাইকেলটিকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই বিজিবি সদস্য সেলিম রেজার মৃত্যু হয়। গুরুতর আহত অবস্থায় কামরুল ইসলামকে টাঙ্গাইল সদর হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।