ইসরাইলকে লক্ষ্য করে রকেট ও ক্ষেপণাস্ত্র মোতায়েন, যেকোনও সময় আঘাত

আমেরিকার শীর্ষ পর্যায়ের একটি নিউজব ওয়েবসাইট বলেছে, দক্ষিণ লেবাননে হিজবুল্লাহ শক্ত প্রতিরোধের নেটওয়ার্ক গড়ে তুলেছে এবং ইসরাইলকে লক্ষ্য করে সেখানে রকেট ও ক্ষেপণাস্ত্র মোতায়েন করা আছে।

মার্কিন ওয়েবসাইট বলছে, হিজবুল্লাহর হাতে এখন এমন উন্নত ক্ষেপণাস্ত্র আছে যা পুরো ইসরাইলের যেকোনো স্থানে আঘাত হানতে সক্ষম।

চলতি সপ্তাহে ইহুদিবাদী ইসরাইলের সামরিক বাহিনীর বিশেষ ইউনিটকে উত্তর সীমান্তে মোতায়েন করা হয়েছে। ইসরাইলের কর্মকর্তারা এই পদক্ষেপকে গত কয়েক বছরের মধ্যে সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ বলে উল্লেখ করেছেন। লেবাননের ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হিজবুল্লাহ বড় অভিযান চালাতে পারে- এমন ভয় থেকে ইসরাইল উত্তর সীমান্তে সেনা সংখ্যা বাড়িয়েছে।

আমেরিকার অর্থ ও বাণিজ্য সংক্রান্ত নিউজ ওয়েবসাইট বিজনেস ইনসাইডার বলছে, লেবানন সীমান্তে ইসরাইল নিজেকে অপ্রতিরোধ্য করে তুলেছিল কিন্তু হিজবুল্লাহ তার ওপর ছায়া ফেলেছে।

হিজবুল্লাহর রকেট ও ক্ষেপণাস্ত্র অসহ্য রকমের ঝুঁকি কিন্তু অগণিত জীবন এবং বিপুল অর্থের বিনিময়ে এই ঝুঁকি সরাতে ইসরাইল এখন প্রস্তুত নয়। সিরিয়ায় উগ্র সন্ত্রাসী গোষ্ঠীগুলোর সহিংসতা শুরুর পর হিজবুল্লাহ সিরিয়া সরকারের সমর্থনে এগিয়ে আসে এবং ইরান ও রাশিয়া সহায়তায় সিরিয়াকে মুক্ত করতে সক্ষম হয়েছে।

সিরিয়ার ভেতরে হিজবুল্লার ব্যস্ত থাকার কারণে লেবানন সীমান্ত আপাতত ইসরাইলের জন্য অনেকটা শান্ত। কিন্তু বিজনেস ইনসাইডার বলছে, এই তুলনামূলক শান্ত অবস্থা সম্ভবত শেষ হওয়ার পথে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে ইসরাইলের একজন সাবেক কর্মকর্তা বলেছেন, ‘হিজবুল্লাহর এই তিন লাখ রকেট ও ক্ষেপণাস্ত্র সামরিক দিক দিয়ে মোটেই গ্রহণযোগ্য নয়। হিজবুল্লাহ উত্তর সীমান্তে আমাদের জন্য খুবই বিপজ্জনক ফাঁদ পেতেছে। কিন্তু আমি পরিষ্কার নই, কতটা গ্রহণযোগ্য মূল্যের বিনিময়ে এর সামরিক সমাধান হতে পারে।’

সূত্র : পার্সটুডে