পাবনার ৩ বছরের শিশু ঢাকায় অপহৃত, লাখ টাকা মুক্তিপণ চেয়ে ফোন!

রাজধানী ঢাকার আশুলিয়া থেকে জুনায়েদ (৩) নামের পাবনার এক শিশু সন্তানকে অপহরণ করেছে দুর্বৃত্তরা। অপহরণের এক সপ্তাহ পর ফোন করে শিশুটির বাবার কাছে এক লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করেছে অপহরণকারীরা।

অপহৃত শিশু পাবনার সাঁথিয়া উপজেলার পাগলা গ্রামের মো. শাজাহান ও রাশিদা খাতুনের ছেলে। বাবা শ্রমিক আর মা আশুলিয়ার ইয়ং ওয়ান গ্যার্মেন্টসে কাজ করেন। তিন সন্তানের মধ্যে জুনায়েদ সবার ছোট।

পরিবার সূত্রে জানা যায়, শাজাহানন-রাশিদা সুখের আশায় তিন সন্তান রাশিদুল, বাইজিদ ও জুনাইদকে নিয়ে ৭/৮ বছর আগে সাঁথিয়া থেকে ঢাকায় পাড়ি জমান। সেখানে শাহজাহান শ্রমিক ও রাশিদা গার্মেন্টস শ্রমিক হিসেবে কাজ শুরু করেন। ভালোও চলছিল তাদের সংসার। এর মধ্যে গত ৮ এপ্রিল আশুলিয়ার ইউনিক দাদাভাই মার্কেট সংলগ্ন বাসা থেকে তাদের তিন বছরের আদরের সন্তান জুনায়েদ গেটের বাইরে থেকে হারিয়ে যায়। বিভিন্ন স্থানে খোঁজা খুঁজির পর জুনায়েদের বাবা শাজাহান ওই দিনই আশুলিয়া থানায় একটি সাধারণ ডাইরি করেন।

ঘটনার দীর্ঘ ৭ দিন পর ১৫ এপ্রিল সকালে অজ্ঞাত ব্যক্তি শিশু জুনায়েদকে ফিরে পেতে শাজাহানের মোবাইল ফোনে ১ এক লক্ষ টাকা চেয়ে ফোন দেন। এ ঘটনায় শিশু সন্তানকে জীবিত উদ্ধারে পাগলপ্রায় হয়ে পড়েছেন শিশু জুনায়েদের অসহায় বাবা ও মা।

কান্নজড়িত কণ্ঠে শিশুটির বাবা শাজাহান জানান, আমার সুখের সংসারে সন্ত্রাসীরা হানা দিয়েছে। আমার সাথে এলাকার কারও খারাপ সম্পর্ক ছিল না। গতকাল শুক্রবার সকাল থেকে ফোনে মুক্তিপণের জন্য অজ্ঞাত একজন টাকা দাবি করে আসছে।

অভিযোগের দায়িত্বপ্রাপ্ত আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আওয়াল হোসেন জানান, নিখোঁজ ডাইরির সাথে সাথেই আমরা শিশুটিকে উদ্ধারের চেষ্টা করে যাচ্ছি। দেশের বিভিন্ন থানায় সন্ধান চেয়ে তথ্য পাঠানো হয়েছে। টাউট-বাটপারা দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে শিশুটির বাবার নিকট টাকা চেয়ে থাকতে পারে।