• আজ
  • মঙ্গলবার,
  • ২১শে নভেম্বর, ২০১৭ ইং
  • |
  • ৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ


Text_2

দুর্নীতির দায়ে সাঁথিয়ায় ইউপি চেয়ারম্যান ও ৫ মেম্বার গ্রেফতার

প্রকাশ: ২২ আগ, ২০১৭ | রিপোর্ট করেছেন নিজস্ব সংবাদদাতা

ভিজিএফ এর চাল আত্মসাতের অভিযোগে পাবনার সাঁথিয়া উপজেলার নাগডেমরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানসহ ৬ জনকে গ্রেফতার করেছে দুদক। মঙ্গলবার দুপুরে পাবনা শহরের চাঁদা খা’র বাঁশতলা এলাকায় দুদক কার্যালয়ের সামনে থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতার ৬ জনের মধ্যে একজন ইউপি চেয়ারম্যান ও বাকি ৫ জন ইউপি সদস্য। তারা হলেন-সাঁথিয়া উপজেলার সোনতলা গ্রামের মৃত খলিলুর রহমানের ছেলে ও নাগডেমরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হারুন অর রশিদ (৩৪), একই গ্রামের মৃত সাঈদ মোস্তফার ছেলে রফিকুল ইসলাম ওরফে দুদু (৬০), ভিটাপাড়া গ্রামের মৃত কাদের প্রামানিকের ছেলে নান্নু প্রামানিক (৬৫), খিদিরগ্রামের আল্লেক প্রামানিকের ছেলে আব্দুল মমিন উদ্দিন (৩৭), নারিন্দা গ্রামের আব্দুস সামাদ সরকারের ছেলে মিঠু সরকার (৪০) এবং বড় পাথাইলহাট গ্রামের মহির উদ্দিন মন্ডলের ছেলে আব্দুল মতিন (৫৫)।

দুদক সমন্বিত কার্যালয় পাবনার উপ-পরিচালক আবু বকর সিদ্দিক জানান, উল্লেখিত আসামিরা পরস্পর যোগসাজসে সরকারী ভিজিএফ এর চাল দুঃস্থদের মাঝে বিতরণ না করে বাজার মূল্যে বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে সোনতলা বাজারের চাল ব্যবসায়ী শ্যামল দাসের গোডাউনে রাখেন। গত বছরের ১১ সেপ্টেম্বর খবর পেয়ে সাঁথিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সাঁথিয়া উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা পুলিশসহ ওই গোডাউনে অভিযান চালিয়ে সরকারী সিল সম্বলিত ৩৭ বস্তা এবং পরিবর্তন ৯২ বস্তাসহ মোট ১২৯ বস্তা চাল উদ্ধার করেন এবং সে সময় শ্যামল দাসকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে প্রেরণ করেন।

এ ঘটনায় উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ বাদি হয়ে সাঁথিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। পরবর্তীতে বিজ্ঞ আদালতের নির্দেশে মামলাটিতে দঃ বিঃ ৪০৯ ধারা সংযোজন পূর্বক তদন্তের জন্য দুর্নীতি দমন কমিশনে প্রেরণ করা হয়। বর্তমানে মামলাটি তদন্তকালে মঙ্গলবার পাবনা শহরের চাঁদা খাঁর বাঁশতলা এলাকা থেকে ওই ৬ জনকে গ্রেফতার করে দুদক। পরে তাদের আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়।