• আজ
  • শনিবার,
  • ২৩শে মার্চ, ২০১৯ ইং
  • |
  • ৯ই চৈত্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ


Text_2

৯/১১ ‘গোপন নথি’ ফাঁসের হুমকি হ্যাকারদের

প্রকাশ: ৪ জানু, ২০১৯ | রিপোর্ট করেছেন

যুক্তরাষ্ট্রে ২০০১ সালের ১১ই সেপ্টেম্বরের তথা ৯/১১’র হামলা নিয়ে এখনও চলে তর্ক-বিতর্ক। বিভিন্ন সময় বিভিন্ন গোষ্ঠী বা ব্যক্তি ভিন্ন ভিন্ন তথ্য দিয়েছে। ভয়াবহ এই সন্ত্রাসী হামলা নিয়ে তাই আজও বিতর্ক আছে। এবার এই হামলা সম্পর্কিত ‘গোপন নথি’ ফাঁস করে দেয়ার হুমকি দিয়েছে একটি হ্যাকার গোষ্ঠী।

‘দ্য ডার্ক ওভারলর্ড’ নামের গোষ্ঠীটি মার্কিন সরকারের কাছে মুক্তিপণ দাবি করেছে। তারা জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারসহ কয়েকটি জায়গায় ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলার সঙ্গে সম্পৃক্ত ‘খুবই স্পর্শকাতর’ তথ্য এখন তাদের হাতে।

মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই ও সিআইএসহ ট্রান্সপোর্টেশন সিকিউরিটি অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (টিএসএ), ফেডারেল অ্যাভিয়েশন অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এফএএ), প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মতো বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ সরকারি প্রতিষ্ঠান থেকে এসব নথি হাতিয়ে নেয়ার দাবি করেছে গোষ্ঠীটি।

হ্যাকিংয়ের দাবি বিশ্বাসযোগ্য করতে নির্দিষ্ট নথির একটি লিঙ্কও প্রকাশ করেছে তারা। গত মঙ্গলবার বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সংবাদমাধ্যম মাদারবোর্ড সর্বপ্রথম এ হুমকির খবর প্রকাশ করে। খবর ফোর্বেস, ইউকে এক্সপ্রেসের।

যুক্তরাষ্ট্রে ২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বরের সন্ত্রাসী হামলা। আল কায়দার সন্ত্রাসীরা চারটি যাত্রীবাহী বিমান ছিনতাই করে এবং এর দুটি আঘাত করে নিউইয়র্কের ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার ভবনে, একটি আঘাত করে ওয়াশিংটনের পেন্টাগনে এবং আরেকটি পেনসিলভানিয়ার একটি মাঠে বিধ্বস্ত হয়। সব মিলিয়ে প্রায় তিন হাজার লোক নিহত হন। বিচিত্র সব ‘ষড়যন্ত্র তথ্য’ আছে ওই ইতিহাসের ভয়াবহ এ হামলার ঘটনা নিয়ে।

এর মধ্যে মার্কিন সরকার বা ইসরাইলের গোয়েন্দা সংস্থা এ হামলার পেছনে ছিল, ওই আক্রমণে কোনো ইহুদি মারা যায়নি, আসলে কোনো বিমান টুইন টাওয়ারে বা পেন্টাগনে আঘাত করেনি- এই রকম নানা কথা।

আরেকটি বড় তথ্য হচ্ছে- ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের দুটি টাওয়ার ধসে পড়েছিল বিমানের আঘাতে নয়, বরং ভবনটির ভেতরে বিস্ফোরক বসিয়ে তা উড়িয়ে দেয়া হয়েছিল। ঘটনার ১৭ বছর পরও এসব তথ্য নিয়ে আলোচনা-বিতর্ক শেষ হয়নি।