• আজ
  • শুক্রবার,
  • ২২শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ইং
  • |
  • ১০ই ফাল্গুন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ


Text_2

পাবিপ্রবি শিক্ষক সমিতি নির্বাচনে উত্তেজনা, ভিসির পক্ষপাতিত্ব

প্রকাশ: ২২ জানু, ২০১৯ | রিপোর্ট করেছেন নিজস্ব প্রতিবেদক

পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির নির্বাচনকে কেন্দ্র করে শিক্ষকদের মধ্যে চরম ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলরের বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ এনে এক পক্ষ সংবাদ সম্মেলন করেছে।

মঙ্গলবার দুপুরে পাবনা প্রেসক্লাব মিলনায়নে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজ’র ব্যানারে নীল দলের প্রার্থীরা সংবাদ সম্মেলন করেন। এসময় নীল দল প্যানেলের সকল প্রার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে নীল দলের সভাপতি প্রার্থী ড. হাসিবুর রহমান লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন। লিখিত বক্তবে তিনি জানান, আগামীকাল বুধবার (২৩ জানুয়ারী) পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে দুইটি প্যানেল অংশ গ্রহন করছেন। মোট ভোটার সংখ্যা একশত।

ড. হাসিবুর রহমান লিখিত বক্তব্যে অভিযোগ করে বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর ড. রুস্তম আলী ফরাজী নির্বাচনকে প্রভাবিত করছেন। ভিসি একটি প্যানেলের পক্ষ নিয়ে অপর প্যানেলের প্রার্থী ও সাধারন শিক্ষকদের ভয়ভীতি প্রদর্শন করছেন। ভিসির নগ্ন হস্তক্ষেপের কারনে শিক্ষকদের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে। শিক্ষক সমিতির নির্বাচনকে সুষ্ঠু শান্তিপূর্ণ ভাবে অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে ভাইস চ্যান্সেলরকে নিরপেক্ষ থাকার আহবানও জানানো হয় সংবাদ সম্মেলনে। এই নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের সুষ্ঠু পরিবেশ বিঘ্ন হলে এর দায়ভার ভিসি স্যারকেই বহন করতে হবে বলেও জানান তারা। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি সর্বোচ্চ অভিভাবক হিসেবে তার নিরপেক্ষ ভুমিকা আমরা সর্বদা প্রত্যাশা করি।

এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দপ্তরের সহকারী পরিচালক ফারুক হোসেন চৌধুরী স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে সংবাদ সম্মেলনে ভাইস চ্যান্সেলরের বিরুদ্ধে করা অভিযোগ সম্পূর্ণরূপে প্রত্যাখান করে প্রতিবাদ জানানো হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে ভাইস-চ্যান্সেলরের বিরুদ্ধে শিক্ষক সমিতির নির্বাচন নিয়ে যেসকল অভিযোগ করা হয়েছে তা সম্পূর্ণরূপে ভিত্তিহীন। শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ বিনষ্ট করার পাশাপাশি ভাইস-চ্যান্সেলরের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করার জন্যই একটি গোষ্ঠীর নোংরা পদক্ষেপের অংশ এই সংবাদ সম্মেলন। শিক্ষক সমিতির নির্বাচন পুরোপুরি শিক্ষকদের নিজস্ব বিষয়। এখানে ভাইস-চ্যান্সেলরের হস্তক্ষেপের কোন সুযোগ নাই। ভাইস-চ্যান্সেলর সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠানের আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন।