• আজ
  • শুক্রবার,
  • ২২শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ইং
  • |
  • ১০ই ফাল্গুন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ


Text_2

পাবিপ্রবিতে শিক্ষার্থীদের তালা-ধর্মঘট-উত্তেজনা, শিক্ষক সমিতির নির্বাচন স্থগিত

প্রকাশ: ২৩ জানু, ২০১৯ | রিপোর্ট করেছেন নিজস্ব প্রতিবেদক

এক ছাত্রীর ম্যাসে ঢুকে এক বখাটে শ্লীলতাহানির চেষ্টা চালার ঘটনাকে কেন্দ্র করে পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডিকে অযোগ্য ব্যর্থ অভিহিত করে পদত্যাগের দাবিতে অনির্দিষ্টকালের জন্য ছাত্র ধর্মঘটের ডাক দিয়ে তালা ঝুলিয়ে দিয়েছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

বুধবার (২৩ জানুয়ারি) সকাল ৯টা থেকে শিক্ষার্থীরা প্রশাসনিক ভবনে তালা ঝুলিয়ে দিয়ে কর্মসূচি শুরু করেছেন। এদিকে সকাল ১০টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির ভোট গ্রহণের পূর্ব নির্ধারিত সময় থাকলেও নির্বাচন কমিশন ভোটগ্রহণ স্থগিত করেছে।

গত এক সপ্তাহ জুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রীর ম্যাসে ঢুকে এক বখাটে শ্লীলতাহানির চেষ্টা চালায়। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে শিক্ষার্থীরা বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে এবং প্রক্টরিয়াল বডির অপসারণ দাবিতে একটি আল্টিমেটাম দেয়। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বিষয়টিকে আমলে না নেয়ার কারণে শিক্ষার্থীরা আজ থেকে ছাত্র ধর্মঘটের ডাক দিয়ে ক্যম্পাসের প্রশাসনিক ভবনসহ সকল ভবনে তালা ঝুলিয়ে দিয়ে বিক্ষোভ করছে।

পাবিপ্রবি শিক্ষক সমিতি নির্বাচন-২০১৯ এর প্রধান নির্বাচন কমিশনার মো. রাশেদুল ইসলাম বলেন, নির্বাচনের জন্য যাবতীয় কার্যক্রম ও প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছিলাম। সকাল ১০টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু করার কথা থাকলেও আমরা সাড়ে ৯টার দিকে ক্যাম্পাসে এসে প্রবেশ করতে পারি নাই। উদ্ভুত পরিস্থিতিতে আমরা নির্বাচন কমিশন শিক্ষক সমিতির নির্বাচনটি সাময়িকভাবে স্থগিত করেছি। পরবর্তীতে কমিশন সিদ্ধান্ত নিয়ে নোটিশ করবেন বলেও জানান তিনি।

বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজ নীল দলের সভাপতি প্রার্থী ড. হাসিবুর রহমান বলেন, ‘নির্বাচনে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর (ভিসি) সমর্থিত প্যানেলের পরাজয় নিশ্চিত বুঝতে পারার পর বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন এই অপকৌশলের আশ্রয় নিয়েছেন কিনা আমাদের বোধগম্য নয়। নির্বাচনের শুরু থেকেই নির্বাচনে ভাইস-চ্যান্সেলর তার অনুসারীদের নিয়ন্ত্রণে রাখতে বিভিন্ন ভাবে অপতৎপরতা চালাতে থাকেন।’

নীল দলের যুগ্ম সাধারল সম্পাদক প্রার্থী কামাল হোসেন বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ক্যম্পাসের পরিবেশ স্বাভাবিক রাখতে ব্যর্থ, তারা আমাদের সুনিশ্চিত বিজয় দেখে এই কাজটি করেছেন। দ্রুত শিক্ষক সিমতির নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরুর দাবি করেন তিনিও।

বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফরিদুল ইসলাম বাবু বলেন, গত শুক্রবার সন্ধ্যারাতে নেশাগ্রস্থ অবস্থায় শহরের রাধানগর মহল্লার একটি ছাত্রীনিবাসে ঢুকে পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির চেষ্টা চালায়। এ সময় ওই বখাটে অন্য ছাত্রীদের বিভিন্ন ভাবে উত্যক্ত করে। ঘটনার পরপরই বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরসহ প্রক্টরিয়াল বডি ঘটনাস্থলে গিয়ে অভিযুক্ত বখাটের চাচার বাড়িতে বসে সমঝোতা করার চেষ্টা করে মিষ্টি খেয়ে চলে আসেন। বিষয়টি সাধারণ শিক্ষার্থীদের মধ্যে জানা জানি হলে তারা বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে। পরে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ পুলিশ প্রশাসনকে চাপ দেওয়ার পর ওই ঘটনায় রাধানগর ডিগ্রী বটতলা এলাকার আমিরুল ইসলামের ছেলে অভিযুক্ত আসিফ ইকবাল চিন্ময়কে (২৭) পুলিশ রাতেই গ্রেফতার করেন। এ সমস্ত কারণে সাধারণ শিক্ষার্থীরা এই প্রক্টরিয়াল বডির পদত্যাগের দাবিতে আন্দোলন করছেন। এখানে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির নির্বাচনের সাথে কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই বলেও জানান এই ছাত্রলীগ নেতা।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর ড. রোস্তম আলী ফরাজী বলেন, ‘নির্বাচনের বিষয়টি আমার জানা নেই, আর এখানে আমার সমর্থিত কোনো প্যানেলও নেই। নীল দল মনগড়া আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছেন। আর সাধারণ শিক্ষার্থীরা এই প্রক্টরসহ প্রক্টরিয়াল বডিকে অযোগ্য আখ্যায়িত করে তাদের পদত্যাগ দাবিতে আন্দোলন করছেন। আসলে কাদের ইশারায় কেন তারা এই কাজ করছেন বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।’