• আজ
  • শনিবার,
  • ১৯শে অক্টোবর, ২০১৯ ইং
  • |
  • ৪ঠা কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Text_2

পাবনায় ডেঙ্গু আক্রান্ত ৭০, হাসপাতালে নেই পরীক্ষার ব্যবস্থা

প্রকাশ: ২৯ জুলা, ২০১৯ | রিপোর্ট করেছেন নিজস্ব প্রতিবেদক

পাবনায় ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা বেড়েই চলেছে। ৭ দিনে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে ডেঙ্গু আক্রান্ত ৩৯ রোগীকে ভর্তি করা হয়েছে। এর মধ্যে সোমবার নতুন করে ভর্তি হয়েছেন ১২ জন। এখনো পাবনা জেনারেল হাসপাতালে ২৬ জন চিকিৎসাধীন রয়েছে। অন্যরা সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছে। এছাড়া শহরের বিভিন্ন বেসরকারি হাসাপাতাল এবং ক্লিনিকে আরো অন্তত: ৩০ রোগী চিকিৎসা নিয়েছেন। সব মিলে ৭ দিনে ৭০ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর খবর পাওয়া গেছে। আক্রান্তদের মধ্যে বেশ কয়েকজন নারী ও শিশু রয়েছে।

পাবনা জেনারেল হাসাপাতালে ডেঙ্গু পরীক্ষার কোন ব্যবস্থা বা কিটস নেই। পাবনায় ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হওয়ার খবরে জনসাধারণের মধ্যে উদ্বেগ দেখা দিয়েছে। অন্যদিকে পাবনা মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালে ডেঙ্গু পরীক্ষার ব্যবস্থা না থাকায় স্বয়ং চিকিৎসক এব্ং নার্সসহ সেখানকার কর্মচারিরা উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ডেঙ্গু পরীক্ষা করার প্রয়োজনীয় কিটস বা প্রযুক্তি সরবরাহের জন্য জরুরী বার্তা পাঠালেও সোমবার পর্যন্ত তা পাওয়া যায়নি বলে জানা গেছে।

এদিকে ভর্তি হওয়া রোগী এবং রোগীর অভিভাকরা জানান, হাসপাতাল থেকে শুধু প্যারাসিটামল ট্যাবলেট ও স্যালাইন দেয়া হচ্ছে। আর অন্য সকল ঔষুধ বাহির থেকে কিনে আনতে হচ্ছে। সাধারণ রোগীদের মধ্যে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীদের না রেখে আলাদা ওয়ার্ডের ব্যবস্থা করা গেলে ভালো হতো। পাশাপাশি সকল চিকিৎসাপত্র সরকারি ভাবে সরবারহ করা উচিত বলে মনে করেন রোগীরা।

পাবনা জেনারেল হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের আবাসিক চিকিৎসক ডা. নাজমুল ইসলাম বলেন, এখন পর্যন্ত আমাদের হাসপাতালে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে যারা ভর্তি হয়েছেন তাদের আমরা পরীক্ষা করিয়ে বিশেষ সেবা প্রদান করছি। আলাদা ভাবে মশারি খাটিয়ে দেয়া হচ্ছে যাতে অন্য সাধারন রোগী এই রোগে আক্রান্ত না হয়।

তিনি জানান, এক সপ্তাহে বেশ কিছু রোগী হাসপাতাল থেকে ছারপত্র দেয়া হয়েছে। প্রতিদিন নতুন রোগী আসছে আবার সুস্থ্য হয়ে অনেকে চলেও গেছেন। এখন বর্তমানে ২৬জন চিকিৎসা গ্রহন করছেন। তবে খুব মারাত্বক কোন রোগী এখনো আমাদের হাসপাতালে ভর্তি হয়নি। এই হাসপাতালে ডেঙ্গু পরীক্ষার ব্যবস্থা না থাকায় সাধারন রোগীরা বাহির থেকে পরীক্ষা করিয়ে আনছে।

হাসপাতাল প্রশাসন থেকে বিষয়টি উর্ধতন কতৃপক্ষকে জানিয়েছেন। পরীক্ষ-নিরীক্ষার সামগ্রী পাঠালে হাসপাতালে স্বল্পমূল্যে পরীক্ষা সেবা দেয়া সম্ভব বলে জানান তিনি।