• আজ
  • শনিবার,
  • ১৯শে অক্টোবর, ২০১৯ ইং
  • |
  • ৪ঠা কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Text_2

তারেক রহমানের বার্তা নিয়ে পাবনার দণ্ডপ্রাপ্তদের বাড়িতে প্রতিনিধি দল

প্রকাশ: ৯ জুলা, ২০১৯ | রিপোর্ট করেছেন নিজস্ব প্রতিবেদক

২৪ বছরে আগে শেখ হাসিনার ট্রেনবহরে হামলার অভিযোগে ফাঁসিসহ দণ্ডপ্রাপ্ত ঈশ্বরদী বিএনপির নেতাকর্মীদের বাসায় গেছেন দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের পাঠানো আইনজীবীদের প্রতিনিধি দল।

মঙ্গলবার (৯ জুলাই) দুপুরে ঢাকা থেকে বিএনপির আইনজীবীদের একটি প্রতিনিধিদল বিএনপির ৪৭ নেতাকর্মীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে স্বজনদের সঙ্গে কথা বলেন। তাদের সব ধরনের আইনগত সহায়তা দেয়ার আশ্বাস দেন।

পরিবার সদস্যদের প্রতিনিধি দলের সদস্য বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী সদস্য ব্যারিস্টার মীর মোহাম্মাদ হেলাল উদ্দিন বলেছেন, ‘বিএনপির ৪৭ নেতাকর্মীর মামলাকে নিজের পরিবারের সদস্যদের মামলা বলে তদারকি করছেন দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। এদের যাবতীয় মামলার খরচ ব্যক্তিগতভাবে বহন করাসহ আনুসঙ্গীক বিষয়ে তদারকি করছেন তারেক রহমান। তারেক রহমানের এই বার্তাটি দিতেই ঢাকা থেকে আমরা আপনাদের বাড়িতে এসেছি।’

পরিবার ও উপস্থিত নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, এই মামলা পরিচালনার জন্য একটি টাকাও পরিবার থেকে আপনাদের দিতে হবে না। কাউকে এই মামলার জন্য কোনোরূপ টাকা দেবেন না। কারণে এই মামলার সকল ব্যায় দলের পক্ষ থেকে বহণ করা হবে। মামলাটিকে নিজের পরিবারের সদস্যদের মামলা হিসেবে কঠোরভাবে পর্যবেক্ষণ করছেন তারেক রহমান। পর্যায়ক্রমে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারা আপনাদের নিকট আসবেন। যোগাযোগ রাখবেন। বিচলিত হবেন না। ধর্য্য হারাবেন না। হাইকোর্টে জামিনের জন্য নিম্ন আদালতের রায়ের কপি ইতোমধ্যে ঢাকাতে পৌঁছে গেছে।

প্রতিনিধি দলের সদস্য অ্যাডভোকেট নিপূণ রায় বলেন, ‘আপনার পরিবারের বাচ্চারা যারা লেখাপড়া করছে তাদের খরচের প্রয়োজন হলে জানাবেন আমরা তা বহন করবো। আপনারা সবাই দোয়া করেন যেন আমরা কামিয়াব হতে পারি।’

ব্যারিস্টার মীর মোহাম্মাদ হেলাল উদ্দিনের নেতৃত্বে আসা আইনজীবীদের মধ্যে অন্যান্যরা হলেন ব্যারিস্টার সাইফুর রহমান, অ্যাডভোকেট নিপূণ রায়, অ্যাডভোকেট গোলাম আক্তার জাকির, অ্যাডভোকেট ওয়াবেদ রহমান চন্দ্র, অ্যাডভোকেট আরিফা সুলতানা রুমা, অ্যাডভোকেট লুবণা, অ্যাডভোকেট রওশন আক্তার, অ্যাডভোকেট আফরোজ।

উল্লেখ্য, ঈশ্বরদী জংশন স্টেশনে ১৯৯৪ সালে আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনার ট্রেন বহরে হামলা মামলায় সম্প্রতি পাবনা আদালত ঈশ্বরদীর বিএনপির ৯ নেতাকে ফাঁসি, ২৫ জনকে যাবতজীবন ও ১৩ জন ১০ বছরের সশ্রম কারা ও অর্থদণ্ডের আদেশ দেন।

এর রায়কে ‘কলঙ্কজনক ও পৃথিবীর ইতিহাসে নজিরবিহীন’ অ্যাখ্যা দিয়ে বিভিন্ন সময় প্রতিবাদ জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ দলের শীর্ষ নেতারা।

মঙ্গলবার (৯ জুলাই) সন্ধ্যায় রাজধানীর লেডিস ক্লাবে এক অনুষ্ঠানে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘১৯৯৪ সালে পাবনায় তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেত্রী শেখ হাসিনার ওপর হামলা হয়েছিল। কিন্তু কোনও হতাহত হয়নি। আমরা যেকোনও হামলার প্রতিবাদ ও নিন্দা করি। কিন্তু যেখানে কোনও হতাহত হয়নি, সেখানে ৯ জনকে মৃত্যুদণ্ড, ২৫ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ১৩ জনকে ১০ বছরের সশ্রম কারাদণ্ডের শাস্তি দিয়েছে। এটাই হচ্ছে বিচার বিভাগের অবস্থা।’