• আজ
  • বুধবার,
  • ২১শে আগস্ট, ২০১৯ ইং
  • |
  • ৬ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ


Text_2

খানা-খন্দে ভরপুর সড়ক, যাতায়াতে চরম দুর্ভোগ

প্রকাশ: ৯ জুলা, ২০১৯ | রিপোর্ট করেছেন মহিদুল খান, চাটমোহর

পাবনার চাটমোহরের পৌর এলাকায় যাতায়াত করতে চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন উপজেলাবাসী।  কারণ, সব সড়ক জুড়েই সৃষ্টি হয়েছে ছোট-বড় খানাখন্দ। এ অবস্থা দীর্ঘদিন থাকলেও এ নিয়ে মাথাব্যাথা নেই পৌর মেয়রের।
পৌর মেয়র অবশ্য দাবি করছেন, সড়কগুলো মেরামত করার জন্য উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।
জানা গেছে, পৌর এলাকায় প্রধান সড়কসহ ছোট-বড় আভ্যন্তরীণ সড়ক রয়েছে ১৮টি।  সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, প্রতিটি সড়কেই পাথর-বিটুমিন উঠে সৃষ্টি হয়েছে খানা-খন্দ। ফলে যাতায়াতের সময় অসহ্যকর ঝাকুনিতে কাহিল হয়ে পড়ছে যানবাহনের যাত্রীরা। সবচেয়ে বেশি দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন নারা-শিশু- বৃদ্ধরা। দুর্ভোগের মাত্রায়  আরও গতি আনে বৃষ্টি। কারণ, সামান্য বৃষ্টিতেই পানি জমে সৃষ্টি হয় জলজোট। তখন দুর্ভোগের সীমা থাকে না। হেঁটে চলতেই পথচারীদের নাভিশ্বাস উঠে।  রিক্সা-ভ্যানসহ অন্যান্য বাহনের যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দিচ্ছে ঘনঘন। ফলে আর্থিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছেন যানবাহনের চালক-মালিকেরা। যানবাহনের চালকেরা প্রতিনিয়ত পৌর কর্তৃপক্ষের ‘গুষ্ঠি উদ্ধার’ করছেন।
মোটরচালিত ভ্যানের চালক বজলুর রহমান, মহরম হোসেন, মানিক বললেন, প্রতিটি গাড়ির চালকের কাছে থেকে ‘চাঁদা’ আদায় করছে পৌরসভা (কর্তৃপক্ষ)। অথচ সড়ক সারা (মেরামত) নিয়ে কোন চিন্তাই নেই মেয়র সাহেবের। অন্য কোন পৌরসভার সড়ক এতো খারাপ না। বৃষ্টি হলি (হলে) তো পায়ে হাঁটাই কঠিন। রশিদ দিয়েই চাঁদা আদায় করা হচ্ছে, জানালেন তারা। বললেন, ঘনঘন ব্রেক করায় আর ঝাকুনিতে নাট-বল্টু ঢিলে হচ্ছে। রিং ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। এগুলো সারতে (মেরামত) টাকা লাগে না?
চাটমোহর পৌরসভার মেয়র মির্জা রেজাউল করিম দুলাল বললেন, দ্রুতই রাস্তাগুলো সংস্কার ও মেরামতের কাজ করা হবে। ইতোমধ্যে কিছু রাস্তা মেরামত ও সংস্কারের জন্য টেণ্ডার দেওয়া হয়েছে।