• আজ
  • বুধবার,
  • ২১শে আগস্ট, ২০১৯ ইং
  • |
  • ৬ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ


Text_2

কলেজ শিক্ষক পেটানো ছাত্রলীগ সভাপতি জুন্নুন কারাগারে

প্রকাশ: ১৮ মে, ২০১৯ | রিপোর্ট করেছেন নিজস্ব প্রতিবেদক

নকল করতে বাধা দেয়ায় পাবনা সরকারি শহীদ বুলবুল কলেজের শিক্ষক মাসুদুর রহমানকে মারধরের ঘটনায় ওই কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি সামসুদ্দীন জুন্নুনকে অবশেষে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শনিবার (১৮ মে) দুপুর ১২টায় পাবনা শহর থেকে তাকে গ্রেফতারের পর আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

গ্রেফতারকৃত সামসুদ্দীন জুন্নুন পাবনা পৌর এলাকার শালগাড়ীয়া মহল্লার মোহাম্মদ আলীর ছেলে ও পাবনা সরকারি শহীদ বুলবুল কলেজের ছাত্রলীগের সভাপতি।

পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এএসপি) গৌতম কুমার বিশ্বাস জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শনিবার বেলা ১২টার দিকে পাবনা শহর থেকে জুন্নুনকে গ্রেফতার করা হয়। দুপুরে তাকে আদালতের মাধ্যমে পাবনা জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এর আগে গত বুধবার রাতে এই ঘটনায় এজাহারভুক্ত দুই আসামি সজল ও শাফিন নামে দুই ছাত্রকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

উল্লেখ্য, গত ৬ মে সরকারি শহীদ বুলবুল কলেজে এইচএসসি উচ্চতর গণিত পরীক্ষা চলাকালে দুজন পরীক্ষার্থী খাতা দেখাদেখি করছিল। এ সময় ওই কক্ষের পরিদর্শক প্রভাষক মাসুদুর রহমান তাদেরকে বাধা দেন। এক পর্যায়ে তাদের খাতা কেড়ে নেন।

এ ঘটনার জের ধরে গত ১২ মে দুপুরে শিক্ষক মাসুদুর রহমান কলেজ থেকে মোটরসাইকেল যোগে বেরিয়ে যাওয়ার সময় কয়েকজন যুবক তার ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। এক পর্যায়ে তার পিঠে লাথিও মারা হয়। মারধরের ভিডিওটি সিসি টিভির মাধ্যমে সামাজিক যোগোযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে।

৩৪তম বিসিএসের এই শিক্ষকের মারধরের ঘটনায় প্রথম দিকে মামলায় নাম ছিল না ছাত্রলীগ নেতা জুন্নুনের। কলেজের অধ্যক্ষ এস এম আব্দুল কুদ্দুস বাদী হয়ে সজল ও শাফিন দুইজনের নাম উল্লেখসহ আরও তিন-চারজনকে অজ্ঞাত করে মামলা দায়ের করেন।

বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সমিতি’র পাবনা জেলা শাখার নেতারা অভিযোগ করেন, স্থানীয় গোলাম ফারুক প্রিন্স এবং জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি শিবলী সাদিক প্রভাবে মামলায় শামসুদ্দিন জুন্নুনের নাম বাদ দিয়ে মামলা দায়ের করানো হয়। এবিষয়ে তারা আন্দোলনের হুমকিও দেন।