• আজ
  • মঙ্গলবার,
  • ১৭ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং
  • |
  • ২রা আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

Text_2

ইন্স্যুরেন্সের নামে কোটি টাকা আত্মসাৎ, কোম্পাসির ম্যানেজারের আটক

প্রকাশ: ৩ সেপ্টে, ২০১৯ | রিপোর্ট করেছেন

পাবনায় মেঘনা লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানীর সদর উপজেলা এরিয়া ব্রাঞ্চ ম্যানেজারের বিরুদ্ধে ১ কোটি টাকা আত্ত্বসাতের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সাধারন গ্রাহকদের জমাকৃত টাকা ফেরত ও অর্থ আত্ত্বসাতকারীর ম্যানেজারের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবিতে শহরের বিক্ষোভ ও মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে ভুক্তভোগী গ্রাহকেরা। মঙ্গলবার বেলা ১২ টার সময় পাবনা প্রেসক্লাবের সামনে এই কর্মসুচি পালন করে।

এসময় প্রতারক অর্থ আত্ত্বসাৎকারী এরিয়া ম্যানেজার মোঃ মোজাহারের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তিসহ প্রত্যেক গ্রাহকের জমানো অর্থ ফেরত দেয়ার দাবিতে পাবনা সদর থানার সামনে বিক্ষোভ প্রর্দশন করেন গ্রাহকেরা।

মানবন্ধনে মেঘনা ইন্স্যুরেন্স কোম্পানির ভুক্তভোগী গ্রাহকেরা বলেন, প্রায় ১০ বছর ধরে সদর উপজেলা এরিয়া ব্রাঞ্চের ম্যানেজার মোঃ মোজাহার হোসেন গ্রাহকের কাছ থেকে প্রায় ১ কোটি টাকা ভুয়া রশিদের মাধ্যমে আত্ত্বসাৎ করেছে। ভুয়া জমাদানের রশিদ করে গ্রাহকের কাছ থেকে নেয়া টাকা সে অফিসে জমা না দিয়ে নিজের নিকট রেখে ব্যবসা করছে বলে জানান তারা। চলতি মাসের টাকা সংগ্রহ করতে আসলে পাবনা অঞ্চলের সদর উপজেলার প্রায় শতাধিক গ্রাহক তার নিকট হিসাব চাহিলে সে হিসাব দিতে গড়িমসি করে।

গ্রাহকেরা জানান, ইতমধ্যে আমরা রাজশাহী অফিসে খোঁজ নিয়ে জানতে পেরেছি যে, এই দায়িত্বপ্রাপ্ত এরিয়া ম্যানেজার আমাদের কোন অর্থ রাজশাহী অফিসে জমা প্রদান করেন নাই। তাই অভিযুক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য প্রশাসনের সহযোগিতা প্রত্যাশা করেন ভুক্তভোগীরা।

ঘটনার বিষয়ে পাবনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওবায়দুল হক বলেন, গতকাল পাবনা সদরের মনহরপুর এলাকায় মেঘনা লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানীর সদর উপজেলা এরিয়া ব্রাঞ্চ ম্যানেজারকে ওই এলাকার ইন্সুরেন্সের সদস্যরা আটক করে। তার নিকট পাকা রশিদ ব এবং অর্থের হিবাব চাইলে সেদিতে পারে নাই। এমত অবস্থায় সাধারন গ্রহকদের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করে। এমন সংবাদের পরিপ্রেক্ষিতে ঘটনা স্থল থেকে ওই ম্যানেজারকে আটক করে থানাতে নিয়ে আসা হয়েছে। অভিযুক্ত ব্যাক্তির কম্পানীর কর্মকর্তাদের সাথে যোগাযোগ করা হচ্ছে। বিষয়টি নিয়ে আমরা তদন্ত করছি। অভিযোগ প্রমানিত হলে অবশ্যই তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। এদিকে অভিযুক্তকারীর বিরুদ্ধে পাবনা সদর থানাতে একটি লিখিত অভিযোগ করেছে ভুক্তভোগীরা।