• আজ
  • বৃহস্পতিবার,
  • ২১শে নভেম্বর, ২০১৯ ইং
  • |
  • ৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Text_2

অসামাজিক কার্যকলাপে কলেজছাত্রী ও ছাত্রলীগ নেতা হাতেনাতে আটক, কারাগারে

প্রকাশ: ৩০ অক্টো, ২০১৯ | রিপোর্ট করেছেন ঈশ্বরদী সংবাদদাতা

নিজ বাড়িতে অসামাজিক কার্যকলাপের সময় এক কলেজ ছাত্রীসহ হাতে-নাতে আটক হয়েছেন পাবনার ঈশ্বরদী পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. নুরুল ইসলাম শাওন।

বুধবার (৩০ অক্টোবর) দুপুর ২টার সময় ঈশ্বরদী শহরের ঈদগাহ্ রোডস্থ শাওনের বাড়িতে এই ঘটনা ঘটে।

ঘটনার ৩ ঘণ্টার পর নানা নাটকীয়তা শেষে বিকাল ৫টার দিকে শাওন ও ওই কলেজ ছাত্রীকে আটক করে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। এ ঘটনায় পুরো ঈশ্বরদীজুরেই চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। শাওন ওই এলাকার শহিদুল ইসলামের ছেলে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয়রা জানান, ছাত্রলীগ নেতা শাওন প্রায়ই তার বাড়িতে বিভিন্ন উঠতি বয়সী বিভিন্ন মেয়েদের নিয়ে এসে অসামাজিক কার্যকলাপে লিপ্ত হয়। সে সময় তার বাড়িতে কেউ থাকে না। বুধবার দুপুরে বাবা-মা ও বোন বাড়ির বাহিরে গেলে শাওন ঈশ্বরদী সরকারী কলেজের এইচএসসি দ্বিতীয় বর্ষের ব্যবসায় শিক্ষা শাখার ছাত্রী মোছা. নদীয়া সুলতানা নদী (১৭) কে তার বাড়িতে নিয়ে এসে অসামাজিক কাজে লিপ্ত হয়।

বিষয়টি স্থানীয়দের সন্দেহ হলে তারা শাওনের বাড়িতে ঢুকে ঘরের দরজা বন্ধ পায়। ডাকাডাকির এক পর্যায়ে ছাত্রলীগ নেতা শাওন ‘উল্টো লুঙ্গি’ পরা অবস্থায় বের হলে তাকে হাতে-নাতে আটক করা হয়। সে সময় শাওন উপস্থিত স্থানীয়দের দেখে নেয়ার হুমকি দেয়। এই খবর ছড়িয়ে পড়লে শত শত এলাকাবাসী, সাংবাদিক ও পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়। প্রায় তিন ঘণ্টা নানা নাটকীয়তা শেষে শাওন ও কলেজছাত্রী নদীকে থানায় আটক করা হয়।

এবিষয়ে শাওন জানান, মেয়েটি তার বান্ধবী। তারা একই কলেজে পড়াশোনা করে। মেয়েটি তার বাড়িতে বেড়াতে এসেছিলো। তার সাথে অন্য কোন সম্পর্ক তার নেই। তবে মেয়টি অবশ্য শাওনের সাথে প্রেমের সম্পর্কের কথা স্বীকার করে বলেছেন, এর আগেও সে শাওনের বাড়িতে এসেছে।

এবিষয়ে যোগাযোগ করা হলে ঈশ্বরদী উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রাকিবুল হাসান রনি জানান, বিষয়টি নিয়ে আমরা ব্রিবত। শাওন দোষী হলে অবশ্যই তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বাহাউদ্দিন ফারুকী বলেন, অসামাজিক কার্যকলাপের বিষয়ে মামলা দিয়ে শাওন ও নদীকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।